• আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাহেদের বিরুদ্ধে ১৬০টি অভিযোগ পেয়েছে র‌্যাব

| ডেস্ক এডিটর ১:১০ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৪, ২০২০ অপরাধ ও দুর্নীতি

করোনার ভুয়া রিপোর্টসহ নানা অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিমের বিরুদ্ধে ১৬০টি অভিযোগ পেয়েছে র‌্যাব। এর মধ্যে রয়েছে চাকরির আশ্বাসে অর্থ আত্মসাৎ, বদলি তদবির, রিকশা-ভ্যানের ভুয়া লাইসেন্স প্রদান, পদ্মা সেতু প্রকল্পে পাথর-বালু, বিটুমিন সাপ্লাইয়ের নামে প্রতারণা। সবশেষ জেল থেকে হাজতি ছাড়াতেও বিভিন্নজনের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছিলেন আলোচিত এই প্রতারক। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) বিকেলে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানায় র‍্যাব।

রিমান্ডের ৬ষ্ঠ দিনে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমের ব্যাপারে দায়িত্ব নেয় র‍্যাব। দশদিন রিমান্ডের বাকি দিনগুলো তারাই জিজ্ঞাসাবাদ করবে। করোনা পরীক্ষা ও কোভিড ১৯ চিকিৎসায় প্রতারণার মামলায় গ্রেফতার হলেও শাহেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে ১৬০টি।

যার সবই নানা কৌশলে অন্তত ১২ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার। মেরে দেয়া এ টাকা কোথায় রিমান্ডে তার হদিস জানতে চাইবে র‍্যাব। র‍্যাব কর্মকর্তা বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্য নিয়েই শাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এর পাশাপাশি অন্যান্য সূত্র থেকে যে অভিযোগ পেয়েছি সেগুলো জানতে চাওয়া হবে। সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে অস্ত্রসহ সাহেদ করিমকে গ্রেফতার করে র্যাব। সে মামলায় রিমান্ডে নিতে আদালতে আবেদন করা হবে।

তিনি আরও বলেন, সাতক্ষীরায় যে মামলা করা হয়েছে, সেই প্রেক্ষিতে সেখানে রিমান্ড আবেদন করবো। গত ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানের ৯ দিন পর সাতক্ষীরার সীমান্ত দিয়ে পালানোর সময় গ্রেফতার হন মোঃ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম।