• আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মেসির সঙ্গে খেলতে বার্সেলোনায় যাচ্ছেন রোনালদো?

ভাবা হয়েছিল এমন কিছু ইন্টার মিয়ামি দেখাবে। একই জার্সিতে মাঠে নামবেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। কিন্তু প্রায় অসম্ভব এমন কিছু দেখা যেতে পারে বার্সেলোনাতেই।

রিয়াল মাদ্রিদ থেকে নতুন চ্যালেঞ্জের খোঁজে জুভেন্টাসে যাওয়া রোনালদোকে নাকি এবার বার্সেলোনাতেও দেখা যেতে পারে। স্বীকার করে নেওয়া ভালো, এমন দলবদল প্রায় অবিশ্বাস্য। কিন্তু দলবদলের বাজারে এমন গুঞ্জনও শুরু হয়েছে কাল।

ইউরোপিয়ান ফুটবলে ঝড় তোলা এই গুঞ্জনের জন্ম দিয়েছেন বিখ্যাত স্প্যানিশ সাংবাদিক গিয়েম বালাগ। গত কয়েক দিন ধরে বাজারে গুঞ্জন, জুভেন্টাস ছেড়ে পিএসজিতে যেতে পারেন রোনালদো।

জুভেন্টাসের হয়ে টানা দুই মৌসুম চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হওয়ার পর নাকি নতুন চ্যালেঞ্জ হিসেবে পিএসজিকে বেছে নিতে চাইছেন রোনালদো।

এ ব্যাপারে বিবিসি প্রশ্ন রেখেছিলেন বালাগের কাছে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো: দ্য বায়োগ্রাফি—এই বইয়ের লেখক বলে তাঁর কাছে বাড়তি তথ্য পাওয়ার আশা করেছিল বিবিসি।

তাদের আশা পূরণ হয়েছে বললে কম বলা হবে। যা বলেছেন বালাগ, তাতে একেবারে চমকে গেছেন সবাই, ‘ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে পিএসজিকে মিলিয়ে গুঞ্জন সৃষ্টি হওয়ার কারণ কিন্তু এটা নয় যে পিএসজি তাঁকে পেতে চায়।

বরং জর্জ মেন্ডেসকে (রোনালদোর এজেন্ট) বলা হয়েছে রোনালদোর জন্য একটা দল খুঁজে বের করার জন্য।’

এত দিন শোনা গেছে রোনালদো জুভেন্টাস ছাড়তে চাচ্ছেন। কিন্তু স্প্যানিশ এই সাংবাদিক জানালেন উল্টো। রোনালদোর জন্য বছরে ৩০ মিলিয়ন (কর পরবর্তী) ইউরো খরচের চাপ আর নিতে পারছে না জুভেন্টাস।

তাই রোনালদোকে অন্য কারও কাঁধে ঠেলে দিতে চায় তারা, ‘গত ছয় মাসে ওর সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের নাম জড়িয়েছিল। রিয়াল বলেছে, “কোনো সুযোগ নেই, সে ফিরছে না।”এমএলএস নিয়েও কথা শোনা গেছে।

এর কারণ জুভেন্টাস তাঁর বেতনের হাত থেকে মুক্তি চায়। অবস্থা এতটাই খারাপ হয়েছে। রোনালদোকে নেওয়ার জন্য সব ক্লাবের সঙ্গেই যোগাযোগ করা হচ্ছে, বার্সেলোনার সঙ্গেও!’

রিয়াল মাদ্রিদের কিংবদন্তির অংশ হয়ে যাওয়া একজনকে বার্সেলোনার জার্সিতে দেখার আশঙ্কা অবশ্য এখনই করার দরকার নেই রিয়াল সমর্থকদের। কারণ বালাগই বলছেন, রোনালদোকে এত সহজে কোনো ক্লাবের পক্ষে নেওয়া সম্ভব নয়, ‘আমার মনে হয় না এত সহজে তাঁকে ছাড়তে পারবে ওরা (জুভেন্টাস)।

যে পরিমাণ বেতন পান তিনি, রিয়ালে কর দেওয়ার পরই ২৩ মিলিয়ন পেতেন, জুভেন্টাসে অন্তত তার সমান পান। কোন দল এত বেতন দেবে?’

৩৫ পেরোনো রোনালদোর জন্য এত বেশি বেতন দিয়ে নেওয়ার মতো ক্লাব বেশি নেই। তবে এই বয়সেও এ মৌসুমে ৩৫ গোল পেয়েছেন রোনালদো।

বেশি বয়সী খেলোয়াড় কেনায় ইদানীং আপত্তি দেখাচ্ছে না বার্সেলোনা। মেন্ডেসের প্রস্তাবে রাজি হয়ে গেলেই কিন্তু মেসি-রোনালদো জুটির দেখা মিলে যাবে বার্সাতেই!