• আজ ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিশুর সেই দৃশ্য নিয়ে যা বললেন এরদোগান

এরদোগান

তালেবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর সেখানে তৈরি হয়েছে অস্থিরতা। ভয়-উৎকণ্ঠায় অনেকেই ভিটেমাটি ছেড়ে দেশান্তরী হওয়ার চেষ্টা করছেন। ভিড় করছেন বিমানবন্দরে। সেখানে ঘটছে হামলার ঘটনা। তালেবানের নাঙা তলোয়ারের ভয়ে অনেক মা-বাবা তার দুধের সন্তানকে মার্কিন সেনাদের হাতে তুলে দিচ্ছেন। এমন ছবি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়েছে। যেটি বিশ্ববিবেকে নাড়া দিয়েছে। এই দৃশ্য চোখ এড়ায়নি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের।

১৯ আগস্ট কাবুল থেকে পালাতে মরিয়া এক আফগান বাবা হামিদ কারজাই বিমানবন্দরের দেয়ালে তার দুগ্ধপোষ্য শিশুকে এক মার্কিন সেনার হাতে হাতে তুলে দেন। ছবিটি দাগ কেটেছে বিশ্ববাসীর হৃদয়ে। এ বিষয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছেন, প্রযুক্তি যুদ্ধ না, শান্তি আনে। নাঙা তলোবারির মুখে আফগান মায়েরা যদি তাদের দুধের সন্তানদের বিদেশি সেনাদের হাতে তুলে দিতে বাধ্য হন সেই দৃশ্য দেখে আমরা আমরা চুপ থাকি কী করে।

আফগানিস্তানে থেকে সেনা প্রত্যাহারের আগমুহূর্তে সেখানে তালেবানের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এসব কথা বলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, এমন নৃশংসায় তুরস্ক চোখ বুজে থাকবে না। কাবুল বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ এতোদিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের হাতে ছিল। বিশৃংখলা এড়িয়ে তারা সেখান থেকে আফগান ছাড়তে চাওয়া লোকজনেকে সরিয়ে আনতে সচেষ্ট। এরমধ্যেই হুড়োহুড়িয়ে অন্তত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, আফগানিস্তানে আরও যদি রক্তপাত হয়, তাহলে বাকি বিশ্বের কাছে আমরা কি জবাব দেব? এদিকে আফগানিস্তানে কূটনৈতিক মিশন অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ঘোষণা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। এরইমধ্যে কাবুলে নিজেদের ভবনে আবার ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে তুরস্কের দূতাবাস।

দু’সপ্তাহ আগে তালেবানরা আফগানিস্তান দখল করে নেয়। তারা সেখানে সরকার গঠনে তৎপর।

পিএন/এনকে

, , ,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজ‘এ । আজই পাঠিয়ে দিন feature.peoples@gmail.com মেইলে