• আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রতিটি ইউনিয়নে অন্তত ৪-৫ স্থানে রয়েছে অবৈধ ড্রেজিং পাইপলাইন!

সিরাজদিখানে সড়কের উপর অবৈধ ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন, অপসারণের দাবী!

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ব্যস্ততম প্রধান ও শাখা সড়কের উপর অবৈধ ভাবে ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন স্থাপন করা হয়েছে। এতে করে প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়নের লাখো মানুষ ও বিভিন্ন যানবাহনের চালকদের।

এছাড়া অবৈধ ভাবে উপজেলার বিভিন্ন সড়কের উপর দিয়ে ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন স্থাপনের কারণে ব্যস্ততম সড়ক সমূহে প্রতিনিয়তই ঘটছে ছোট বড় দূর্ঘটনা। যত্রতত্র রাস্তার উপর ড্রেজিং পাইপের কারণে জনসাধারণ ও গাড়ী চালকদের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। নিরাপদ ও সুশৃঙ্খল সড়ক নিশ্চিতের লক্ষে বিভিন্ন সড়কের উপর দিয়ে অবৈধ ভাবে টানা ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন উচ্ছেদের দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

উপজেলার ইউনিয়ন সমূহ ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রধান সড়কসহ শাখা সড়কের উপর দিয়ে ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন টানা হয়েছে। সড়কের উপর দিয়ে অবৈধ ভাবে টানা ড্রেজিংয়ের পাইপ সমূহ দিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাড়ী ও ফসলি জমি ভরাটের কাজ করে চালাচ্ছে প্রভাবশালী সিন্ডিকেটের লোকজন। সড়কের উপর প্রায় আধা থেকে এক ফুট ও কোন কোন স্থানে এক থেকে দেড় ফুট উঁচু করে ইটের শুড়কি দিয়ে পাইপ সমূহ ঢেকে রাখার কারণে যাত্রী ও যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। ঘটছে ছোট বড় অসংখ্য দূর্ঘটনাও।

বিশেষ করে জৈনসার, মালখানগর ইউনিয়নসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে অবৈধ ড্রেজিংয়ের রমরমা ব্যবসা চলছে। সম্প্রতি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বয়রাগাদী ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কের উপর স্থাপনকৃত ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন অপসারন করা হয়েছে। তবে উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়নের সড়কের উপর স্থাপনকৃত অবৈধ ড্রেজিংয়ে পাইপ লাইন উচ্ছেদের উদ্যোগ নেই বললেই চলে। এমনকি জণপ্রতিনিধের অভিযোগের ভিত্তিতেও সেসব অবৈধ পাইপলাইন রহস্যজন কারণে উচ্ছেদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

এতে করে প্রভাবশালী সিন্ডিকেটের লোকজন জণসাধারণকে বেকায়দায় ফেলে নির্বিঘ্নে ড্রেজিংয়ের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় ইজিবাইক চালকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, রাস্তার উপর দিয়ে পাইপ লাইন টানার কারণে তাদের চলাচলে অনেক কষ্ট হয়। বিশেষ করে বৃষ্টির দিনে ও রাতের বেলায় অনেকটাই বেকায়দায় পরেন তারা । অনেক সময় দ্রুত গতিতে গাড়ি চালাতে গেলে দূর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে অনেক ইজিবাইক চালকদের।

সন্ধ্যার পর রাস্তায় বাতি না থাকায় রাস্তার উপর পাইপ স্থাপনের কারণে যাতায়াত ভোগান্তির সম্মূক্ষিন হচ্ছেন উপজেলা বিভিন্ন এলাকার ইজিবাইক চালকরা। প্রতিটি ইউনিয়নের প্রধান ও শাখা সড়কে অন্তত ৪-৫ স্থানে ড্রেজিংয়ের পাইপ লাইন অতিক্রম করতে হয় তাদের। ব্যস্ততম সড়ক থেকে অবৈধ ড্রেজিংয়ের পাইপলাইন উচ্ছেদে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামণা করেছেন তারা।

এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম জানান, আমরা নিয়মিত এ বিষয় ব্যবস্থা নিচ্ছি। চারদিন আগে ড্রেজারের চারটি পাইপ অপসারন করা হয়েছে।

পিএন/জেটএস


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজ‘এ । আজই পাঠিয়ে দিন feature.peoples@gmail.com মেইলে