• আজ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সাতক্ষীরায় নৌকার প্রতীকের জন্য রাজাকার পুত্রের দৌড়ঝাঁপ

| নিউজ এডিটর ১:৩৫ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৮, ২০২১ সাতক্ষীরা

বিশেষ প্রতিবেদন

সাতক্ষীরায় ১৩ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ১০টিতে পরাজিত হয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থী। বিতর্কিতদের দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় নৌকার চরম ভরাডুবির কারণ হিসেবে দেখছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা।

আগামি পঞ্চম ধাপের নির্বাচনে কোন বিতর্কিতদের মনোনয়ন না দিতে অনেক দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা।

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ ও আশাশুনি উপজেলার গেজেটভূক্ত রাজাকার মোজাহার সরদারের সন্তান খাজরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিমকে মনোনয়ন না দেওয়ার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচী পালন করে আসছে দলীয় নেতা-কর্মী ও মুক্তিযোদ্ধারা।

চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাতক্ষীরার আশাশুনি, কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলার নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা দৌড়ের ওপর রয়েছেন। ইউপি নির্বাচনে ভুয়া তালিকা দিয়ে বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা অর্থ আত্মসাৎকারী, ধর্ষন, চাঁদাবাজি, গেজেটভূক্ত রাজাকারের সন্তান, হত্যা মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামীসহ নানান অপরাধে জড়িয়ে থাকা বির্তকিতরাও যেকোনা মূল্যে নৌকার মনোনয়ন পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

নৌকা প্রতীক পাওয়ার আশায় দেন দরবার করছেন বিভিন্ন দপ্তর ও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে। তৃণমূল নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, প্রভাবশালী এমপি ও স্থাণীয় জেলার নেতাদের ম্যানেজ করে বিতর্কিতদের মনোনয় দেওয়ায় সাতক্ষীরার নৌকার ভরাডুবি হয়েছে।

বিতর্কিতদের মনোনয়ন না দিতে দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরারব অভিযোগ দাখিল করেছেন আশাশুনি উপজেলার ৮নং খাজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রুহুল কুদ্দুস মোল্ল্যা।

তার লিখিত অভিযোগপত্রে জানা গেছে, নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউপি চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম বিতর্কিতদের একজন। তিনি গেজেটভুক্ত রাজাকার যুদ্ধপরাধী মামলার আসামী গদাইপুর গ্রামের মোজাহার সরদারের ছেলে। আপদমস্তক বিএনপি পরিবারের লোক। তার বড় ভাই আব্দুল আলীম ছিলেন আশাশুনি উপজেলা বিএনপির আহবায়ক। মেজ ভাই জুলফিকার আলী জুলি উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক। আরেক ভাই বিএনপির সদস্য। চেয়ারম্যান ডালিমের বিরুদ্ধে রয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা শরবত আলী হত্যা মামলা, বোমা বিস্ফোরণ, ধর্ষন, আগুনে পুড়িয়ে হত্যা, দুদকে ত্রাণ আত্মসাৎ মামলাসহ একাধিক চার্জশিটভুক্ত হত্যা, চাঁদাবাজির মোট ১৫টি মামলা রয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ না করে টাকা উত্তোলন, ৯টি ওয়ার্ডে ভুয়া ব্যাক্তিদের নাম দিয়ে ভিজিএফসহ গরীব দুঃখীদের বরাদ্দকৃত সরকারের দেওয়া লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতসহ ৬নং ওয়ার্ডের চেউটিয়া গ্রাম মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় ১০৮ জন হিন্দু পরিবারের নাম দিয়ে বরাদ্দকৃত ত্রানআত্মসাৎ মামলা দুদকে তদন্তাধীন রয়েছে। তিনি স্থাণীয় আওয়ামীলীগ নেতা শরবত হত্যা মামলায় দীর্ঘদিন আত্মগোপনে থাকার পর ঢাকা থেকে গ্রেফতার হয়ে জেলও খেটেছেন। রাজাকার সন্তান নৌকার মনোনয়ন চাওয়ায় এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়েছে। ফুঁসে উঠেছে তৃণমুলের নেতা-কমীরা।

আশাশুনি উপজেলার ৮ নং খাজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রুহুল কুদ্দুস মোল্ল্যা জানান, মুক্তিযুদ্ধের সময় গদাইপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী সরদারকে শাহনেওয়াজ ডালিমের বাবা কুখ্যাত রাজাকার মোজাহার মেলেটারি ও রাজাকার ক্যাম্পে তুলে নিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। এঘটনায় নিহতের পুত্র নাজিমুদ্দীন বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলাটি যুদ্ধাপরাধ আন্তর্জাতিক ট্রাইবুনালে বিচারাধীন রয়েছে। রাজাকারের সন্তান শাহনেওয়াজ ডালিমকে নৌকার মনোনয়ন না দেওয়ার জন্য আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে।

এবিষয়ে চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম জানান, পিতা মোজাহার সরদারের বিরুদ্ধে রাজাকারের অভিযোগ এনে একটি মহল যে অভিযোগ করেছিলেন সেই অভিযোগকারীরা তা প্রমাণ করতে পারেনি। তিনি রাজাকার ছিলেন না মর্মে গত ১০ অক্টোবর উপজেলা থেকে তদন্তকারী কমিটি একটি প্রতিবেদন দিয়েছেন। আমার বিরুদ্ধে ১৫টি নয়, ৬টি মামলা ছিল, তিনটি খারিজ হয়েছে গেছে। বর্তমানে শরবত মোল্যা হত্যাসহ তিনটি মামলা চলমান রয়েছে। তিনি এবারও নৌকার প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করতে চান।

উল্লেখ্য, তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ধলবাড়িয়া ইউনিয়নে গেজেটভূক্ত রাজাকারের সন্তান গাজী শওকাত হোসেনকে নৌকার মনোনয় দেওয়ায় দলীয় নেতা-কর্মী ও মুক্তিযোদ্ধাদের আন্দোলনের মূখে গাজী শওকাত হোসেনর মনোনয়ন বাতিল করে পরবর্তিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক স্বজল মুখার্জী দলীয় মনোনয়ন পান।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজ‘এ । আজই পাঠিয়ে দিন feature.peoples@gmail.com মেইলে