• আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জয় পেলো না পিএসজি

| আসমাউল মুত্তাকিন,নিউজ রুম এডিটর ৭:৩০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ খেলাধুলা, ফুটবল

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের নতুন মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দুর্বল লেন্সের কাছে ০-১ গোলে হেরে যাত্রা শুরু করেছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত থাকার কারণে সে ম্যাচে ছিলেন না নেইমার, ডি মারিয়াসহ পিএসজির সাত খেলোয়াড়। ফলে মোটামুটি দ্বিতীয় সারির দল নামাতে হয়েছিল কোচ থমাস টুখেলকে। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে নেইমার জুনিয়র, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লেওনার্দো পারেদেসরা ফিরলেও বদলায়নি পিএসজির ভাগ্য। এবার তুলনামূলক শক্তিশালী মার্শেইর বিপক্ষেও একই ব্যবধানে হেরেছে লিগ ওয়ানের হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়নরা, তাও কি না নিজেদের ঘরের মাঠে।

লিগের প্রথম দুই ম্যাচে নেই কোনো গোল, মিলেছে পরাজয়; পিএসজির ইতিহাসে এমন ঘটনা এ নিয়ে ঘটল মাত্র দ্বিতীয়বার। এর আগে ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমের লিগেও প্রথম দুই ম্যাচে কোনো গোল না করে হেরেছিল ১৯৭০ সালে যাত্রা শুরু করা ক্লাবটি।

রোববার রাতের ম্যাচে মাঠের খেলার সৌন্দর্য্যের চেয়ে যেনো মারামারি আর ফাউলের আধিক্যই ছিল বেশি। ক্রমাগত ফাউলে বারবার ছন্দপতন হয়েছে খেলার। সাজানো গোছানো আক্রমণের দেখা মেলেনি খুব একটা। তবু খালি চোখে মাঠে আধিপত্য ছিলো পিএসজিরই। পুরো ম্যাচের দুই তৃতীয়াংশ সময় বল দখলে রাখেন নেইমার- ডি মারিয়ারা। এমনকি আক্রমণও করেন তারাই বেশি। কিন্তু কাজের কাজ গোলটি মার্শেই। ম্যাচের ৩১ মিনিটের সময় খেলার ধারার বিপরীতে জয়সূচক গোলটি করেন ফ্লোরিয়ান থাউবিন। এই গোল আর ফিরিয়ে দিতে পারেনি পিএসজি।

ম্যাচ যখন মার্শেইর পক্ষে ১-০ ব্যবধানে শেষ হতে চলেছিল, তখনই অতিরিক্ত যোগ করা সময়ে ঘটে এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। এক ফাউলকে কেন্দ্র করে রীতিমতো মারামারি লেগে যান দুই দলের খেলোয়াড়রা। সে ঘটনার নেইমারসহ ৫ জনকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। সবমিলিয়ে পুরো ম্যাচে ১২ হলুদ কার্ড ও ৫ লাল কার্ড দেখিয়েছেন রেফারি। যা কি না চলতি শতকে লিগ ওয়ানে সর্বোচ্চ কার্ডের রেকর্ড।

,