• আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পর আ-লীগ আন্দোলন গড়ে না তোলায় জাতিকে দুঃশাসনের কবলে পড়তে হয়েছে: ড. কলিমউল্লাহ

জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ)

শোকাবহ ১৫ আগস্ট উপলক্ষ্যে জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ)-এর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৪ আগস্ট) জানিপপ-এর ২৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও শোকাবহ ১৫ আগস্ট উপলক্ষ্যে ওয়েবেনার জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করেন।

ড. কলিমউল্লাহ বলেন, ১৯৭৫ এ বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর আওয়ামীলীগ কর্তৃক কোন ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে উঠেনি। এছাড়াও ৭৫ এর পট পরিবর্তনের পর খন্দকার মুশতাক সরকারে আওয়ামীলীগের কতিপয় সদস্য যোগ দিয়ে জাতির জন্য দুর্ভাগ্য বয়ে এনেছে। তৎকালীন আওয়ামীলীগ কর্তৃক ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে পারলে জাতিকে দীর্ঘদিন দুঃশাসনের কবলে পড়তে হতো না। বাঙালী জাতিকে নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। তাহলেই বঙ্গবন্ধুর প্রতি প্রকৃত সম্মান প্রদর্শিত হবে। কোন নির্দিষ্ট দিনে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করার মধ্যে ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ হয় না। বরং তাঁকে সবসময়ই স্মরণ করতে হবে।

শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় মূল আলোচক হিসেবে বক্তব্য উপস্থাপন করেন আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) ডা. মো. শাহজাহান।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড ছিলো খুবই পরিকল্পিত। কারণ মধ্যম সারির কয়েকজন সেনাবাহিনীর সদস্য দিয়ে এ কাজ করা দুরূহ ছিলো। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মদদে এ হত্যাকাণ্ডটি সংঘটিত হয়েছে। এ অপশক্তিকে রুখে দিতে হবে। তাহলেই বাংলার মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারবে। অপরাজেয় বাংলার সাধারণ সম্পাদক এইচ. রহমান মিলু বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডে সেনা শাসক জিয়াউর রহমানের সংশ্লিষ্টতা ও তার বিভিন্ন অপকৌশল তুলে ধরেন।

আলোচনায় বক্তব্য উপস্থাপন করেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার এ বি এম রাশেদুল হাসান। ড. হাসান ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের স্মৃতিচারণ করেন।

তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ড বাঙালী জাতির জন্য ছিলো অপূরণীয় ক্ষতি। বঙ্গবন্ধু নিজে কষ্ট করে বাঙালী জাতির জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে পাঞ্জেরীর ভূমিকা পালন করেন।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ রশিদুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন দেশ ও জাতির প্রতিমূর্তি। বঙ্গবন্ধু দেশকে সমৃদ্ধ করার জন্য আজীবন কাজ করে গেছেন।

এছাড়া আজকের আলোচনায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাজমা আক্তার বঙ্গবন্ধুর ২য় বিপ্লব সম্পর্কে তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু মূলত অর্থনৈতিক মুক্তি ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আনয়নের জন্য এ বিপ্লবের ডাক দিয়েছেন। বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার এন্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক ত্বহা হুসাইন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর অবদান অত্যন্ত কৃতজ্ঞতার সাথে তুলে ধরেন।

অপরদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার দেওয়ান নুসরাত জাহান বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অবদান তুলে ধরেন। আইইউবিএটি এর সহযোগী অধ্যাপক ও জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার ড. তানভীর ফিত্তীণ আবীর শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অবদান তুলে ধরেন। জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মনজুরুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির কথা তুলে ধরেন।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য উপস্থাপন করেন জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার যথাক্রমে মোতালেব হুসাইন, মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, আফসানা সনি, শামসুন্নাহার লাভলী, সাংবাদিক কাজী শরিফুল ইসলাম, গোলাম মুর্শেদ এবং মোঃ মুরাদ হোসেন।

এছাড়াও অত্র আলোচনায় আরো উপস্থিত ছিলেন জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার মোঃ কামাল উদ্দিন, শাহেনশাহ, আইরিশা মহিন এবং গবেষক মোঃ এহতেরামুল হক। জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ) এর ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মাস ব্যাপী ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় জানিপপ-এর ন্যাশনাল ভলেনটিয়ারগণ বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অবদান ও আত্নত্যাগ তুলে ধরেন।

পিএন/এফএইচপি

,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজ‘এ । আজই পাঠিয়ে দিন feature.peoples@gmail.com মেইলে