২৭শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, সোমবার

ভারত জামায়াত ইসলামীর আন্দোলনের ডাক,সমর্থন দিয়েছে বুদ্ধিজীবীরা

আপডেট: ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯

| ডেস্ক এডিটর

ভারতের জামায়াতে ইসলামীর নেতা সৈয়দ সাদাতউল্লাহ হুসেনির আমন্ত্রণে আমন্ত্রণে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে পদেক্ষেপ নিতে এক জরুরি সভা আহ্বান করা হয়েছে। এ সভায় জাতীয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও দেশের মুসলিম বুদ্ধিজীবীদের ডাকা হয়েছে বলে জানায় ভারত ইসলামিক মিডিয়া। সভায় গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

সর্বসম্মতিক্রমে নেয়া সিদ্ধান্তগুলো হচ্ছে-
০১। ভারতের বিভিন্ন সংগঠন ও নেতা, বুদ্ধিজীবীদের এ বৈঠক থেকে নাগরিকত্ব সংশোধন আইন পাসের তীব্র নিন্দা জানায়। এটিকে দেশের গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ এবং অবকাঠামোর পরিপন্থী বলে বিবেচনা করা হয়।

দেশের সকল নাগরিককে এই আইনের বিরোধিতা করার জন্য আবেদন করা হয়। এ আইন প্রত্যাহারের জন্য সরকারকে চাপ দেয়ারও আহ্বান জানায় তারা।

০২। সভায় জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া এবং আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি দেশের সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশংসা করেছে যারা দৃঢ়তার সঙ্গে এ আইনের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে।

০৩। বৈঠকে দিল্লি পুলিশের নৃশংস আচরণের নিন্দা জানানো হয়েছে, শান্তিপূর্ণ প্র’তিবাদকারীদের হোস্টেল এবং গ্রন্থাগারগুলিতে গিয়ে পুলিশি হা’মলা বন্ধ করার দাবি করেছেন তারা। পুলিশের ব’র্বরতার বিষয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে বলা হয়েছে। দোষী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার আবেদও জানানো হয়েছে।

০৪। সভায় প্র’তিবাদকারীদেরকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানানো হয়েছে। যেনো দুর্বৃত্তরা তাদের উপর কোনো ষ’ড়যন্ত্র করে সহিংসতায় পরিণত না করতে পারে।

০৫। বৈঠক থেকে তারা এ প্রতিশ্রুতি ঘোষণা করে যে আমরা এ আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সকল অংশগ্রহণকারীদের সঙ্গে একতাবদ্ধ থাকব। পাশাপাশি বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী তাদের নাগরিকত্ব নিয়ে দেশে স্বাধীনভাবে বাঁচার অধিকার নিশ্চিত করারও আহ্বান জানায় তারা। এরজন্য শীঘ্রই একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করে বিস্তারিত কাঠামো স্থাপন করারও আহ্বান জানায় তারা।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা মাহমুদ মাদানী, মাওলানা তৌকির রাজা খান, মাওলানা শিস তামিম, ডা. মুহাম্মদ মনজুর আলম, ডা. জাফরুল ইসলাম খান, জনাব নাভিদ হামিদ, ডা. সৈয়দ কাসিম রসুল ইলিয়াস, জনাব মুহাম্মদ জাফর, মাওলানা নিয়াজ আহমদ ফারুকী,

জনাব জাফর মোহাম্মদ ফারুক, জনাব কামাল ফরমাতুক, মোনাওয়ার আহমদ, জনাব মুজতবা ফারুক, জনাব আবদুল জব্বার সিদ্দিকী, জনাব আবুবালা আলী সৈয়দ সুবহানী এবং জনাব ইরফানুল্লাহ খান প্রমুখ।