• আজ ১৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
পিপলস শিরোনাম
 ছেলের কারাদন্ড হাজী সেলিমের সাম্রাজ্য পতন | সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ইন্দিরা গান্ধী মঞ্চ তৈরি করা হবে : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী | ভ্যাকসিন আনতে দু-চার দিনের মধ্যেই চুক্তি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী | পণ্য বর্জনের ডাক, ফ্রান্সের ঘড়ি ফেলে দিলেন ফারিয়া | ফের ২ দিনের রিমান্ডে ইরফান সেলিমের ব্যক্তিগত সহকারী দিপু | ওসি-ডিসিরা অভিযোগ না শুনলে আমার দুয়ার খোলা : ডিএমপি কমিশনার | বিএনপি আমাদের শক্র নয় আর মির্জা ফখরুল একজন সজ্জন মানুষ: কাদের | আমার দেশের মানুষ, আমার এলাকার মানুষ তারা কষ্টে থাকবে, এটা তো মানবতা না: প্রধানমন্ত্রী | করোনা কেড়ে নিল আরও ১৮ প্রাণ, শনাক্ত ১৩২০ | বিএনপির রাজনীতি এখন ফেসবুক স্ট্যাটাস ও গণমাধ্যমেই সীমাবদ্ধ : কাদের |

তামিমের অসহায় আত্মসমর্পণ;মাহমুদউল্লাহ’র কাছে

-ছবি: সংগৃহীত

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের দ্বিতীয় ম্যাচে মঙ্গলবার তামিম একাদশকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। দুই ম্যাচ খেলা রিয়াদদের এটি প্রথম জয়। অন্যদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হারের স্বাদ পেল তামিমের দল।

এর আগের ম্যাচে নাজমুল একাদশের বিপক্ষে তারা ৪ উইকেটে হেরেছিল। প্রথম জয়ের লক্ষ্যে তামিম একাদশের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংইয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাহমুদউল্লাহ। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে তামিম একাদশ ১০৩ রানেই গুঁটিয়ে যায়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৭ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় মাহমুদউল্লাহ একাদশ।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪১ রান করে অপরাজিত থাকেন নুরুল হাসান সোহান। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন মুমিনুল হক। তামিম একাদশের পক্ষে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ১টি, তাইজুল ইসলাম ২টি ও মোস্তাফিজুর রহমান ১টি করে উইকেট নেন।

মাহমুদউল্লাহ একাদশ ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় শূন্য রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে। তবে জয়ে ক্ষেত্রে এ বিপর্যয় বাদা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। এরপর ৩৯ রানের জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ ও মুমিনুল হক।

১৫তম ওভারে রিয়াদ ফিরে গেলে মুমিনুল ও সোহান জুটি বাঁধেন। তারা ৩৮ রানের পার্টনারশিপ করেন। দলীয় ৭৭ রানে মুমিনুল ফিরে গেলে সোহান ও সাব্বির রহমান দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রুবেল-সুমনদের বোলিং তোপে মাত্র ১০৩ রানে অলআউট হয়ে যায় তামিম একাদশ। তারা ব্যাট করতে পারে পেরেছে ২৩.১ ওভার। বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি ৪৭ ওভারে কমিয়ে আনা হয়।এদিন শুরুতেই ব্যক্তিগত ২ রানে ফিরে যান অধিনায়ক তামিম ইকবাল। অপর ওপেনার তানজিদ হাসান ১৮ বলে ২৭ রান করে বিদায় নেন। ওয়ানডাউনে নেমে ২৫ রান করেন এনামুল হক বিজয়। পরের ব্যাটসম্যানরা শুধু আসা যাওয়ার মধ্যে থাকেন। সবমিলিয়ে ১০৩ রানে গুটিয়ে যায় তারা।

মাহমুদউল্লাহ একাদশের পেসার রুবেল হোসেন ৫ ওভারে ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করেছেন। ৫ ওভারে ৩১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন আরেক পেসার সুমন খান। স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ৪.১ ওভারে ২ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন। ৩ ওভারে ১৭ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন আমিনুল ইসলাম। ম্যাচ সেরা হন রুবেল হোসেন।

টুর্নামেন্টে একটি দল আরেকটি দলের বিপক্ষে ২ বার করে মুখোমুখি হবে। পয়েন্ট টেবিলের সেরা দুইটি দল ২৩ অক্টোবর ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হবে। আগামী ১৫ অক্টোবর নাজমুল একাদশের মুখোমুখি হবে তামিম একাদশ।


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com