• আজ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কুলিয়ারচর থেকে উদ্ধার অজ্ঞাত লাশের পরিচয় মিলছে: ১ জনকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই

-গ্রেপতারকৃত সুমন বিশ্বাস

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকার ব্রহ্মপুত্র নদের পাড় নির্জন জঙ্গল থেকে উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত পরিচয় যুুুুবকের লাশের পরিচয়সহ প্রযুক্তির মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করে এর সাথে জড়িত সুুুমন বিশ্বাস (৩০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই।

অজ্ঞাত পরিচয় নিহত যুুবকের নাম কামাল হোসেন। সে চাদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার খরুমখালী গ্রামের সিদ্দিক আলী পাঠানের পুুুত্র। আর গ্রেফতার হওয়া সুুুমন বিশ্বাস হলেন, কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার ছয়সূতী ইউনিয়নের হাপানিয়া গ্রামের মৃৃত শচিন্দ্র বিশ্বাসের পুত্র।

জানা যায়, নিহত কামাল হোসেন ও কুলিয়ারচর উপজেলার ছয়সূতী ইউনিয়নের হাপানিয়া গ্রামের মৃত হিরো খানের পুত্র খোকন খান মালয়েশিয়ায় একসাথে থাকতেন। সেখানে থাকা অবস্থায় পরস্পরের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে তাদের এ বন্ধুত্ব উভয় পরিবারের মধ্যে পারিবারিক বন্ধুত্বে রূপ নেয়। আর সে সুবাদে খোকন একাধিকবার চাদপুরে নিহত কামালের বাড়িতে আসা যাওয়া করে।

এরই মাঝে গত ৫ বছর পূর্বে খোকন খান মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফেরত এসে নিহত কামালের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখে এবং বিভিন্ন সময় ব্যবসার কথা বলে নিহত কামালের নিকট থেকে ব্যাংকের মাধ্যমে ও তার পরিবারের লোকজনের কাছ থেকে প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ টাকা ধার আনে। পরে নিহত কামাল দেশে এসে খোকনের নিকট টাকা ফেরত চাইলে গত ৩ সেপ্টেম্বর খোকন খান কামালকে কুলিয়ারচরে আসতে বলে।

এই আশ্বাসে ঐদিন রাতে নিহত কামাল খোকনের নিকট কুলিয়ারচরে আসতে চাইলে খোকন ও তার ব্যবসায়ীক পার্টনার সুমন বিশ্বাসহ আরও কয়েকজন নরসিংদী জেলার মরজাল থেকে কামালকে সিএনজি যোগে কুলিয়ারচর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের কাটাখালী সুইচ গেইট এলাকায় ব্রহ্মপত্র নদের পাড় কাটাল বাগানের পাশে নির্জন জঙ্গলে এনে নৃশংসভাবে খুন করে ফেলে রেখে যায়। সংবাদ পেয়ে পরদিন ৪ সেপ্টেম্বর কুলিয়ারচর থানা পুলিশ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির লাশ হিসেবে উদ্ধার করে কুলিয়ারচর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ৪ (৯) ২০২০।

পরে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ হত্যকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করতে ব্যর্থ হওয়ায় অবশেষে গত ৬ অক্টোবর মামলাটি পিবিআই- এ হস্তান্তর করা হয়। এদিকে গত ১৮ অক্টোবর নিহত কামালের চাচা হারুন অর রশিদ পিবিআই তদন্তকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজাদ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করে নিহতের ছবি দেখে এটা তার ভাতিজা কামালের লাশ হিসেবে শনাক্ত করে। পরে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে গত ১৯ অক্টোবর পিবিআই পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আজাদ হোসেন অভিযান চালিয়ে খোকন খানের ব্যবসায়ীক পার্টনার মৃত শচিন্দ্র বিশ্বাসের পুত্র সুমন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত সুমন বিশ্বাস আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী প্রদান করে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

এ ব্যাপারে পিবিআই পুলিশ সুপার মোঃ শাহাদাত হোসেন পিপিএম সাংবাদিকদের জানান, আমরা কামাল হত্যা মামলার মত খুব অল্প সময়ের মধ্যে আরও কয়েকটা মামলার রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হবো।

সূত্র : বিবিসি জার্নাল।

পিএন/জেটএস

,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com