• আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শীতকে সামনে রেখে ব্যস্ত, আদমদীঘির তাঁতপল্লী!!

| নিউজ রুম এডিটর ৯:০২ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ৩১, ২০২০ দেশজুড়ে

আল-ইমরান শেখ, আদমদীঘি (বগুড়া ) প্রতিনিধি : বগুড়ার আদমদীঘিতে শীতকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছে তাঁতপল্লীর তাঁতিরা। উত্তরের হিমেল হাওয়া শীতের আগমনের জানান দিচ্ছে। উত্তরের জেলা বগুড়া আদমদীঘি উপজেলায় শীতের এই আগমনী বার্তা ছড়িয়ে গেছে।

সকাল-সন্ধা একটু একটু কুয়াশার চাদর ঢাকা পড়ছে উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামে, শীতের এই আগমন বার্তাকে সামনে রেখে তাঁতিরা নিচ্ছেন শীত মোকাবিলার প্রস্তুতি।ফলে ব্যস্ততা বেড়েছে তাঁতিদের ও সাঁওইল বাজার সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়েদের। বগুড়া আদমদীঘি উপজেলা থেকে ৬.৬ কি.মি উত্তরে নরশৎপুর ইউনিয়নের ছোট্ট একটি গ্রাম সাঁওইল। গ্রামটি কম্বল-চাদরের হাট নামে পরিচিত, প্রতি রবিবার ও বুধবার ভোরবেলা থেকে শুরু হয়ে বিকাল পযন্ত চলে হাট দুরদুরান্ত থেকে ক্রেতা-বিক্রেতা এসে হাটকে মুখরিত করে। রবিবার ও বুধবার হাট হলেও প্রতিদিন চালু থাকে বাজার, সেখানে থেকে সুতা সংগ্রহ করে তাঁতির।

সাঁওইল বাজার কেন্দ্র করে উপজেলার অন্তত ৩০টি গ্রামে তাঁতশিল্প গড়ে উঠেছে, যা তাঁতপল্লী নামে পরিচিত লাভ করেছে। সাঁওইল বাজারের আশেপাশে ঘোড়াদহ,ধামাইল, মুন্দিরপুকুর,কামারপুকুর,বানিয়াগাড়ি,নলঘড়িয়া,কেশরতা,মুরাদপুরসহ অন্তত ৩০টি গ্রামের ৩০০০০ হাজার লোকের সংসার চলে এই বাজারকে ঘিরে। কেউ ব্যবসা,কেউ অন্যর সুতার দোকানে, কেউ কেউ স্টক ব্যবসা,মহিলারা ২০০-২৫০ টাকা মুজরীতে অন্যর দোকানে কাজ করে সংসার চালায়, বলা চলে মানুষের বেঁচে থাকার সংগ্রাম চলে এই বাজার ঘিরে। শীত শুরুর আগে তাঁতিরা কম্বল, উলেন বড় ও লেডিস চাদর,গামছা, মাফলা,মোজা,সোয়েটারসহ নানা ধরনের শীতবস্ত্র।

আজ সরেজমিনে গিয়ে গ্রামগুলোতে দেখা যায়, নারী পুরুষ সহ পরিবারে সবাই ব্যস্ত সময় পার করছে যেন দম ফালানোর সময় নাই। তাঁতিরা জানান, এই তাঁতপল্লীর যে সম্ভাবনা, সরকারি সুবিধা বাড়াতে পারলে তাঁতপল্লীটি হতো একটি দৃষ্টান্তমূলক বাণ্যিজিক কেন্দ্র।।। আল্-ইমরান শেখ, আদমদীঘি, বগুড়া।


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com