• আজ ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বক্সিং-ডে টেস্ট জয় পেতে মরিয়া ভারত ও অস্ট্রেলিয়া

| নিউজ রুম এডিটর ১২:৫৯ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৬, ২০২০ খেলাধুলা

আজ বাংলাদেশ সময় ভোরে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বক্সিং ডে টেস্টে মুখোমুখি ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। করোনার মধ্যে চলমান বছরের শেষ টেস্টে জয় পেতে চায় দু’দলই। সেই সঙ্গে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ২-০ ব্যবধানে লিড চায় অজিরা।

কারণ অ্যাডিলেডে দিবা-রাত্রির ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ৮ উইকেটে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। জয়ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে সিরিজে এগিয়ে যেতে চায় স্বাগতিকরা।

অন্যদিকে, নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও পেসার মোহাম্মদ সামিকে ছাড়াই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলতে নামতে হচ্ছে ভারতকে। তবে কোহলি-সামিকে ছাড়াই সিরিজে সমতা আনার লক্ষ্য টিম ইন্ডিয়ার।

দুঃসহ স্মৃতি নিয়েই বক্সিং-ডে টেস্ট খেলতে নামবে ভারত। প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয় সফরকারীরা। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে এটিই ভারতের সর্বনিম্ন ইনিংস। প্রথম ম্যাচ হেরে ব্যাকফুটে ভারত। তার মধ্যে কোহলি ও সামিকে তারা পাচ্ছে না।

কোহলি ও তার স্ত্রী বলিউড তারকা আনুষ্কা শর্মার কোলজুড়ে আসছে প্রথম সন্তান। তাই অস্ট্রেলিয়া ছেড়ে দেশের পথে কোহলি। সিরিজের বাকি টেস্টগুলোতে তাকে দেখা যাবে না। দেখা যাবে না সামিকেও। প্রথম টেস্টে ব্যাটিং করার সময় অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিচেল স্টার্কের বাউন্সারে হাতে আঘাত পান এই পেসার।

হাতের ইনজুরিতে পড়ে পুরো সিরিজ তো বটেই, দেশের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজেও অনিশ্চিত সামি।
কোহলি ও সামির না থাকাটা অস্ট্রেলিয়ার জন্য বড় সুবিধা বলে অকপটে স্বীকার করলেন অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘কোহলি সর্বকালের সেরাদের একজন। আর সামিও ভারতীয় বোলিং আক্রমণে খুব গুরুত্বপূর্ণ। তার দারুণ দক্ষতা রয়েছে। এই দুইজন দ্বিতীয় টেস্টে না থাকা অবশ্যই আমাদের সুবিধা। কোহলির পরিবর্তে রাহানে অধিনায়ক। এখানে তাকে চাপে ফেলতে হবে। এছাড়া দলের সেরা খেলোয়াড় না থাকলে যেকোনো ক্রিকেট দলই দুর্বল হয়ে পড়ে। এটাই বাস্তব। এটাই আমাদের জন্য বড় সুবিধা।’

কোহলি-সামি না থাকায় গা ছাড়া ভাব দেখাতে রাজি নন ল্যাঙ্গার। নিজেদের কাজগুলো ভালোভাবে করতে চান তিনি, ‘আমরা জানি, সব কিছু ঠিকঠাক করতে হবে আমাদের। প্রথম দিন থেকেই দারুণভাবে শুরু করতে হবে। প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে হবে। প্রথম টেস্টের মত সব কিছু সহজ হবে না। আবার কোহলি-সামির না থাকলেও সবকিছু সহজ হবে না। আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।’

প্রথম টেস্টের দল থেকে কোন পরিবর্তন করতে চান না ল্যাঙ্গার। প্রথম ইনিংসে ব্যর্থ হলেও, দ্বিতীয় ইনিংসে জুটিতে রান করেছেন দুই ওপেনার জো বার্নস ও ম্যাথু ওয়েড। ল্যাঙ্গার বলেন, ‘গত ম্যাচের পর যদি বক্সিং-ডে টেস্টের দলে আমি পরিবর্তন করি, তবে আমাকে অনেক বেশি সাহসী হতে হবে। ম্যাচের আগে কোনো খেলোয়াড় ইনজুরিতে না পড়লে, একই দল মাঠে নামবো।’

একাদশ নিয়ে চিন্তার ভাঁজ থাকলেও বক্সিং ডে টেস্ট নিয়ে নিজেদের লক্ষ্য স্পষ্ট করেছেন ভারতের মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পূজারা। তিনি বলেন, ‘প্রথম টেস্টের দুঃস্মৃতি আমরা ভুলে যেতে চাই। সবকিছু নতুনভাবে শুরু করবো। জয় পেতে সকলকেই ভালো খেলতে হবে। দলগত পারফরম্যান্স না হলে, এই কন্ডিশনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয় পাওয়া কঠিন। নিজেদের কন্ডিশনে অস্ট্রেলিয়া কতটা শক্তিশালী দল হতে পারে, অ্যাডিলেডে তা দেখিয়েছে তারা। সিরিজে ফিরতে হলে, যার যা দায়িত্ব তা পালন করতে হবে।’

কোহলি-সামির না থাকাটা ভারতের জন্য বড় ক্ষতির বলে নিশ্চিত করেছেন পূজারা। অস্ট্রেলিয়ার কোচ ল্যাঙ্গারের সাথে সুর মিলিয়ে তিনি বলেন, ‘কোহলি-সামি না থাকায় আমরা শক্তির দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে পড়েছি। কোহলি বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান। সামিও বিশ্ব সেরাদের একজন। সে দলের প্রয়োজনে দারুণ পারফরম্যান্স করে। এই দুইজন না থাকায় মেলবোর্ন টেস্টে এগিয়ে থাকবে অস্ট্রেলিয়া। তবে আমাদের লড়াই করতে হবে এবং সিরিজে ফিরতে হবে। দলের সবাই পরের ম্যাচে ভালো করতে মুখিয়ে আছে।’

ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইয়ে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামবে ভারত। ইতোমধ্যে স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। কোহলির অনুপস্থিতিতে দলের নেতৃত্ব দেবেন মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান আজিঙ্কা রাহানে। সবমিলিয়ে একাদশে পরিবর্তন এসেছে চারটি।

বিরাট কোহলির জায়গায় দলে ফেরানো হয়েছে অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজাকে। পেসার শামির পরিবর্তে অভিষেক হচ্ছে ডানহাতি পেসার মোহাম্মদ সিরাজের। সিরাজ ছাড়াও এই টেস্টে অভিষেক হচ্ছে আরও একজনের। ডানহাতি তরুণ শুভমান গিলকে টেস্ট খেলতে নামানো হচ্ছে প্রথমবারের মতো। তিনি খেলবেন পৃথ্বী শ’র পরিবর্তে।

মেলবোর্ন টেস্টের একাদশে রাখা হয়নি ঋদ্ধিমান সাহাকে। ফেরানো হয়েছে বাঁহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিশাভ পন্থকে। এদিকে প্রথম টেস্টের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নামবে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া।

ভারতের একাদশ: মায়াঙ্ক আগারওয়াল, শুভমান গিল, চেতেশ্বর পূজারা, হানুমা বিহারি, আজিঙ্কা রাহানে (অধিনায়ক), রিশাভ পন্থ (উইকেটরক্ষক), রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, উমেশ যাদব, জাসপ্রিত বুমরাহ এবং মোহাম্মদ সিরাজ।

পিএন/এএএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com