• আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উচ্ছ্বাস ‘যুদ্ধ’ জয়ের

| নিউজ রুম এডিটর ৮:৫২ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১৩, ২০২১ আন্তর্জাতিক
-ছবি: সংগৃহীত

‘ক্যাপ্টেন লিডিং ফ্রম দ্যা ফ্রন্ট’ বাক্যটার যথার্থ উদাহরণ দু’জন। পাকিস্তানকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছেন ইমরান খান। আর সময়ের সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির কাঁধে চড়ে ভারত এখন ক্রিকেট বিশ্বের দাপুটে দল।

এই দু’জনের মধ্যে কে সেরা? এমনই একটি ভোটাভুটির আয়োজন করে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারের সেই ভোটে ভারতীয় অধিনায়ককে হারিয়েছেন সাবেক পাকিস্তানী অধিনায়ক ও দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী।

প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আরো ছিলেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ও অজি নারী দলের অধিনায়ক মেঘ ল্যানিংও। তবে লড়াইটা মূলত হয়েছে ইমরান খান ও বিরাট কোহলির মধ্যে। সবমিলিয়ে ৫ লাখ ৩৬ হাজার ৩৪৬ জন টুইটার ব্যবহারকারী ভোটে অংশ নিয়েছেন। এরমধ্যে সর্বোচ্চ ৪৭.৩ শতাংশ মানুষ ক্রিকেটের সত্যিকারের নেতা হিসেবে বেছে নিয়েছেন ইমরান খানকে।

আরও পড়ুন:মেরে ফেলার হুমকিতে ভয় দেখিয়ে কী হবে, আমি ভয় পাই না’

নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিরাট কোহলি পেয়েছেন ৪৬.২ শতাংশ মানুষের ভোট। ডি ভিলিয়ার্স পেয়েছেন মাত্র ৬ শতাংশ ভোট। মেঘ ল্যানিংয়ের অর্জন ০.৫ শতাংশ ভোট। আইসিসি বলছে, এই ৪ জনের অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর দিনে দিনে বেড়েছে ক্রিকেটীয় নৈপুন্যও। ক্যাপ্টেন্সিকে চাপ হিসেবে নয়, বরং উপভোগ করেছেন তারা। ফলে বেড়েছে তাদের পারফরম্যান্সের ধার।

অধিনায়ক হওয়ার আগে টেস্টে ব্যাট হাতে ২৫.৪৩ ও বল হাতে ২৫.৫৩ গড় ছিল ইমরান খানের। যেখানে অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর তার ব্যাটিং গড় দাঁড়ায় ৫২.৩৪-এ! আর বোলিং গড়টাও হয়ে দাঁড়ায় ঈর্ষণীয়, মাত্র ২০.২৬। নেতৃত্বের ব্যাটন পরার আগে কোহলির ওয়ানডে ব্যাটিং গড় ছিল ৫১.২৯। অধিনায়ক হওয়ার পর তার ব্যাটিং গড় ৭৩.৮৮।

একইভাবে দক্ষিণ আফ্রিকান তারকা ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটিং গড় যেখানে ছিল ৪৫.৯৭, অধিনায়কত্ব করাকালীন সেটি দাঁড়ায় ৬৩.৯৪-এ।

পিএন/এএমএস


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com