• আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
পিপলস শিরোনাম
 খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত কিন্তু বিদেশ যেতে পারবেন না : আনিসুল হক | বিএনপির আন্দোলনের বিকল্প হচ্ছে আগুন সন্ত্রাস, অপরাজনীতি আর গুজব : কাদের | স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতেও নারীরা নিরাপদ নয় : মির্জা ফখরুল | খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের‘ হাতে | ‘আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য সরকারের সময়ে নারীর ক্ষমতায়নের কোন সুযোগ ছিল না’ | মুজিববর্ষে বাংলাদেশে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী | এমপি হাজী সেলিমের দুর্নীতি মামলার রায় কাল | নেতা কর্মীদের স্লোগান শিখিয়ে দিলেন মির্জা ফখরুল | ৭ই মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার বক্তব্য হিসেবে সারাবিশ্বে একমাত্র প্রামাণ্য দলিল : তাপস | ১০ দিন ব্যাপি অনুষ্ঠান মোদীসহ দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষ চার নেতা ঢাকায় আসছেন |

আমি ব্যথা পাই নাই, ওইটা ছিল অভিনয় : কুদ্দুস বয়াতি

| নিউজ রুম এডিটর ৭:১৩ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১ বিনোদন

ফেসবুকে একটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, করোনা ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে প্রচণ্ড ব্যথায় কুঁকড়ে গেছেন কুদ্দুস বয়াতি। আর এই ছবিটাই ফেসবুকে হোমপেজজুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই ছবিটিকে টিকা নেওয়ার ছবি না, মজা করে অভিনয় করেছেন বলে জানালেন কুদ্দুস বয়াতি।

কুদ্দুস বয়াতি বলেন, ‘আমি টিকা নিছি, এখন আমি আমার গানের জগতে ফিরব। আমার খুব আনন্দ হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমি ধন্যবাদ জানাই, তিনি সাধারণ মানুষকে বিনা মূল্যে টিকা নেওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আমার প্রধানমন্ত্রী আমাদের দুঃখী মানুষদের দুঃখ বোঝেন, আমি কৃতজ্ঞ- আপনারা একটু লেইখা দিবেন।’

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় কুদ্দুস বয়াতি টিকা নেন। সেই টিকা কেন্দ্র থেকেই কুদ্দুস বয়াতির তোলা ওই ছবিটি ভাইরাল হয়ে যায়। একজন মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট ছবিটি তুলেছেন, তিনি যে ছবিটি ফেসবুকে ছেড়ে দেবেন সেটা জানতেন না।

ভাইরাল ছবির ব্যাপারে কুদ্দুস বয়াতি বললেন, ‘আরে না, ভ্যাকসিন নেওয়ার সময় অভিনয় করতাছিলাম। ভ্যাক্সিন আমার আগেই নেওয়া হইছিল। আমি একটুও ব্যথা পাই নাই। ভ্যাকসিন নিতে ব্যথা নাই। বোঝাও যায় না। আমার যে ছবিটা ফেসবুকে ছাড়ছে শুনলাম, ওইটা কামটা ঠিক করে নাই। কেউ যে ছবি তুইল্লা ছাইড়া দিব জানতাম না। আরো ভালো জানতে পারবেন, আমার পোলা আমার টিকা নেওয়ার ভিডিও ছাড়ব ইউটিউবে। ওইটার জন্যই একটু অভিনয়ও করছি।’

কুদ্দুস বয়াতি সরকারের যেকোনো উদ্যোগকে ইতিবাচকভাবে নেন। গত বছর ধান কাটার সময় যখন লোকজন পাওয়া যাচ্ছিল না, তখন উৎসাহ দিতে ধান কাটতে নেমে পড়েছিলেন, সেই সঙ্গে গান বেঁধে জনগণকে আগ্রহী করেছিলেন ফসল ঘরে তোলার জন্য।

কুদ্দুস বয়াতি সে সময় বলেছিলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে কৃষকরা এখন বিপাকে আছেন। এই মুহূর্তে তাঁদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। কৃষকদের উৎসাহ দিতেই আমি তাঁদের সঙ্গে ধান কাটা শুরু করেছি। সবাইকে আহ্বান জানাব, এই সময়টায় কৃষকদের ধান কেটে দিয়ে সাহায্য করার জন্য। কৃষক বাঁচলেই বাঁচবে বাংলাদেশ।’

পিএন/আর

,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com