• আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
পিপলস শিরোনাম
 খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত কিন্তু বিদেশ যেতে পারবেন না : আনিসুল হক | বিএনপির আন্দোলনের বিকল্প হচ্ছে আগুন সন্ত্রাস, অপরাজনীতি আর গুজব : কাদের | স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতেও নারীরা নিরাপদ নয় : মির্জা ফখরুল | খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের‘ হাতে | ‘আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য সরকারের সময়ে নারীর ক্ষমতায়নের কোন সুযোগ ছিল না’ | মুজিববর্ষে বাংলাদেশে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী | এমপি হাজী সেলিমের দুর্নীতি মামলার রায় কাল | নেতা কর্মীদের স্লোগান শিখিয়ে দিলেন মির্জা ফখরুল | ৭ই মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার বক্তব্য হিসেবে সারাবিশ্বে একমাত্র প্রামাণ্য দলিল : তাপস | ১০ দিন ব্যাপি অনুষ্ঠান মোদীসহ দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষ চার নেতা ঢাকায় আসছেন |

আমাদের মধ্যে ছিল আত্মার সম্পর্ক,সেই সম্পর্কে ছেদ ঘটল : রিয়াজ

| ডেস্ক এডিটর ৩:৩৫ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২১ চলচিত্র, ঢাকা, বিনোদন, হেডার স্কল

দীর্ঘ ৫০ বছরের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে একটিমাত্র সিনেমা পরিচালনা করেছেন এ টি এম শামসুজ্জামান। ছবির নাম এবাদত। এতে নায়ক হিসেবে অভিনয় করেছিলেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক রিয়াজ।

ব্যক্তিগতভাবে রিয়াজকে ভালোবাসতেন এ টি এম। কাজ করতে গিয়ে বাবা-ছেলের সম্পর্ক হয়ে গিয়েছিল তাদের মধ্যে। সে জন্য তাঁর মৃত্যুতে প্রিয়জন হারানোর ব্যথা পেয়েছেন রিয়াজ। তার মতে, এ টি এমের মৃত্যুতে শূন্যতা তৈরি হলো চলচ্চিত্র অঙ্গনে।

ভারাক্রান্ত কণ্ঠে রিয়াজ বলেন, “অসাধারণ একজন অভিনেতা ছিলেন এ টি এম শামসুজ্জামান। তাঁর মৃত্যুকে আমি শোকাহত। তিনি আমাকে খুব ভালোবাসতেন। তাঁর প্রথম পরিচালিত ছবির নায়ক ছিলাম আমি। এছাড়া তাঁর লেখা মোল্লা বাড়ির বউ সিনেমাতেও আমি অভিনয় করেছি। কাজ করতে গিয়ে আমাদের মধ্যে আত্মার সম্পর্ক তৈরি হয়ে গিয়েছিল। মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সেই আত্মার সম্পর্কে ছেদ ঘটল। তিনি শারীরিকভাবে আমাদের মাঝে থাকবেন না। তবে সব সময় মনের মধ্যে সেই আত্মার সম্পর্ক থেকে যাবে।”

কয়েক মাস আগে এ টি এম অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারসহ দেখতে গিয়েছিলেন রিয়াজ। তখন এ টি এম জানিয়েছিলেন, রিয়াজকে নিয়ে আরো একটি সিনেমা বানাতে চান তিনি।

রিয়াজ বলেন, “তিনি আমাকে কেন ভালোবাসতেন জানি না। আমিও তাঁকে ভালোবাসতাম। তিনি চেয়েছিলেন আমাকে নিয়ে আরো একটি সিনেমা নির্মাণ করতে। কিন্তু সেই আশা তো আর পূরণ হবে না।”

ব্যক্তি হিসেবে এ টি এমের মূল্যায়ন করতে গিয়ে রিয়াজ বলেন, “ভালো মনের মানুষ ছিলেন তিনি। সবার সঙ্গে মিশে যেতে পারতেন। শুটিংয়ে আমরা প্রচুর মজা করতাম। তাছাড়া তিনি জীবদ্দশায় অনেক সমস্যার মধ্য দিয়ে দিন পার করেছেন। কিন্তু সেই সমস্যাগুলো কখনো চোখে-মুখে ফুটে উঠত না।”

রিয়াজ বিশ্বাস করেন, দর্শক কখনো এ টি এম শামসুজ্জামানকে ভুলে যাবে না। তিনি তাঁর কাজের মাধ্যমে যুগ যুগ ধরে বেঁচে থাকবেন।

পিএন/এএজি

, ,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com