• আজ ৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৭ দিনের লকডাউনে রাজশাহী

গত কয়েকদিন ধরে করোনা সংক্রমণে হটস্পট খ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জকেও ছাড়িয়ে গেছে রাজশাহী। নগরীতে গত তিন দিনের র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে তা সহজেই অনুমেয়। করোনা সংক্রমণের হার পর্যালোচনা করে রাজশাহীতে সাত দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত রাজশাহী সার্কেট হাউসে অনুষ্ঠিত জরুরি বৈঠকে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠকে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ শরিফুল হক। তিনি জানান, ১১ জুন (শুক্রবার) থেকে ১৭ জুন পর্যন্ত রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) এলাকায় সর্বাত্মক কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি করা হয়েছে। এতে বলা আছে, করোনা ভাইরাসজনিত রোগে সংক্রমণের ফলে সৃষ্ট পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ১১ জুন বিকেল ৫টা থেকে ১৭ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকায় চারটি বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে।

বিধিনিষেধগুলো হলো- সব ধরনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, শপিংমল, মার্কেট, দোকান, রেস্টুরেন্ট বন্ধ থাকবে। তবে ওষুধ, কাঁচামাল, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন বা সৎকারের সঙ্গে জড়িত প্রতিষ্ঠান এর আওতা বহির্ভূত থাকবে।

যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, বিধিনিষেধ চলাকালীন কোনো ধরনের যানবাহন রাজশাহীতে প্রবেশ কিংবা নগরীর বাইরে যেতে পারবে না। তবে আমসহ অন্যান্য কৃষিপণ্য, খাদ্যসামগ্রী, রোগী পরিবহনকারী অ্যাম্বুলেন্স ও জরুরি সেবাদানকারী পরিবহন বিধিনিষেধের আওতামুক্ত থাকবে।

জনসমাগমের বিষয়ে বলা হয়েছে, জনসমাবেশ হয় এমন সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানসহ সব ধরনের গণজমায়েত বন্ধ থাকবে। চতুর্থত, সকল পর্যটনকেন্দ্র, রির্সোট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে।

উপরিউক্ত বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ শরিফুল হক আরও বলেন, নিজের জন্য, নিজের পরিবারের জন্য অন্তত সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিৎ। শুধুমাত্র আত্মসচেতনতাই পারে এই ভয়াবহ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে, অন্যথায় সম্ভব নয়। সুতরাং, প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হলে মাস্ক ব্যবহার, বেশি বেশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান ব্যবহারের মাধ্যমে সবার স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করার অনুরোধও জানান তিনি।

পিএন/এসআই

,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - feature.peoples@gmail.com