ঢাকা, ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনাভাইরাসের লক্ষণে ডায়রিয়া ক্ষুধামন্দাও

প্রকাশিত: শনিবার, মার্চ ২১, ২০২০ ৩:০৭ অপরাহ্ণ  

| হাবিব, ডেস্ক এডিটর

ডায়রিয়া, বমি ও ক্ষুধামন্দার মতো হজমি সমস্যা করোনাভাইরাসের লক্ষণ হিসেবে দেখা দিতে পারে। একটি গবেষণার বরাতে ডেইলি মেইলের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

কোভিড-১৯ ভাইরাসের উৎসভূমি উহানে ২০৪ রোগীর ওপর গবেষণা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৯৯ রোগী হজমি সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অর্থাৎ কেবল হজমের সমস্যার কারণেই তারা চিকিৎসা কেন্দ্রে যান।

কিন্তু তাদের অধিকাংশেরই এর আগে কখনো মারাত্মক হজমি সমস্যা দেখা দেয়নি। ৮৩ শতাংশ ক্ষুধামন্দা ও ২৯ শতাংশ ডায়রিয়ার মতো পরিপাক সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন।

এছাড়া শূন্য দশমিক আট শতাংশ বমি ও শূন্য দশমিক ৪ শতাংশ পেটে ব্যথার মতো হজমি সমস্যা নিয়ে হাজির হন হাসপাতালে।

অধিকাংশ রোগী শ্বাসপ্রশ্বাস ইস্যুতে হাসপাতালে এসেছেন। শুকনা কাশি ও শ্বাসক্রিয়া সমস্যাও দেখা গেছে তাদের। এসবের মধ্যে হজমি সমস্যাও ছিল। সাত রোগী কেবল হজমি সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

চীনাদের এই গবেষণা অন্যান্য শিক্ষাবিদরাও পরীক্ষা করে দেখেছেন। চলতি সপ্তাহে আমেরিকান গ্যাস্ট্রোয়েন্টারোলজি জার্নালে এই নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

যেসব রোগীদের ওপর গবেষণা করা হয়, তাদের গড় বয়স ছিল ৫৫ বছর। রোগীদের মধ্যে ১০৭ পুরুষ ও ৯৪ নারী ছিলেন। গত ১৮ জানুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারিতে তারা কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

হজমি সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের ৯২ জন সংক্রমণের কারণে শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত জটিলতায় ভুগছিলেন। রোগ যত মারাত্মক রূপ নিয়েছে, হজমি সমস্যাও তত কঠিন হয়েছে বলে গবেষণায় দেখা গেছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, পরিপাক সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের তুলনায় অন্যরা আগে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আমরা দেখেছি যে কোভিড-১৯ রোগীদের মধ্যে হজমি সমস্যা একেবারেই স্বাভাবিক। তারা সুস্থ হতেও সময় নিয়েছেন।

ইউসিএলএ’র ওষুধ ও জনস্বাস্থ্য বিভাগের অধ্যাপক ডা. ব্রেনান স্ফিগার বলেন, কোভিড-১৯ রোগীদের মধ্যে যারা হজমি সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন, তাদের মৃত্যু ঝুঁকি বেশি ছিল।

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – Peoplesnews24.com@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ