ঢাকা, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জনপদে কালের আবর্তনে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে বাবুই পাখির বাসা

প্রকাশিত: রবিবার, জুলাই ১২, ২০২০ ১০:২৩ অপরাহ্ণ  

| আরিফুল ইসলাম, বিশেষ সংবাদদাতা, ভোলা

ভোলাসহ দক্ষিন জনপদে কালের আবর্তনে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে বাবুই পাখির বাসা। বাবুই পাখি নিয়ে কবি সাহিত্যিকরা অনেক গল্প ও কবিতা লিখেছেন। তালের পাতায় মোড়ানো নিপুণ কারুকার্য শোভিত বাবুই পাখির বাসা। এরা সাধারণত মানুষের কাছাকাছি বসবাস করে, তাই দেখা যায় এদের বাসা মানুষের হাতের নাগালের মাত্র পাচ অথবা ছয় ফুট উপরে। গ্রামের তাল,নারিকেল ও খেজুর গাছে বাসা বাঁধে। ফলে অনেক অসচেতন মানুষ এদের বাসা ভেঙে ফেলে আর একারণেই এদের সংখ্যা রহস্যজনকভাবে কমে যাচ্ছে।

বাবুই পাখি দেখতে অনেকটা চড়ুই পাখির মত। তবে আকারে একটু বড়। এরা ঝাঁক বেঁধে তাল গাছের চুড়ায় বসবাস করে,এরা খুব মেধাবী পরিশ্রমী পাখি হিসেবে পরিচিত। গ্রামে বাবুই পাখির বাসা থাকলেও আগের মতো এখন আর সচরাচর চোখে পরেনা দৃষ্টিনন্দন ছোট্ট বাসা ও বাসা তৈরির প্রাকৃতিক দৃশ্য । প্রতিটি তালগাছে ১শ’ থেকে ১৫০টি বাসা তৈরি করতে সময় লাগে ১০-১৫ দিন। তালপাতা, খড় ও কাশবনের লতাপাতা দিয়ে বাবুই পাখি বাসা বাঁধে। সেই বাসা দেখতে যেমন মনোহর, তেমনি নিরেট। বৃষ্টি-ঝড়ে বাসাগুলো পড়েনা।

জানাযায়, বাবুই পাখিটি বাসা তৈরি করার পর বেরিয়ে পড়ে সঙ্গীর খোজে। সঙ্গী পছন্দ হলে স্ত্রী বাবুইকে সাথী বানানোর জন্য পুরুষ বাবুই নিজেকে আকর্ষণীয় করতে খাল, বিল ও ডোবার পানিতে গোসল করে গাছের ডালে ডালে নেচে বেড়ায়। দুজনই মিলে চমৎকার বাসা বুনে বাস করায় এ পাখির পরিচিতি বিশ্বজোড়া।

বাবুই পাখির বাসা উল্টানো কলসির মত দেখতে। বাসা বানাবার জন্য বাবুই খুব পরিশ্রম করে। ঠোঁট দিয়ে ঘাসের আস্তরণ সারায়। যত্ন করে পেট দিয়ে ঘষে (পালিশ করে) গোল অবয়ব মসৃণ করে। শুরুতে দুটি নিম্নমুখী গর্ত থাকে। পরে একদিক বন্ধ করে ডিম রাখার জায়গা হয়। অন্যদিকটি লম্বা করে প্রবেশ ও প্রস্থান পথ হয়। কথিত আছে: রাতে বাসায় আলো জ্বালার জন্য বাবুই জোনাকী ধরে এনে রাখে। এরা সাধারণত খুটে খুটে বিভিন্ন ধরনের বীজ,ধান,পোকা,ঘাষ,ছোট উদ্ভিদের পাতা ও ফুলের মধু-রেণু ইত্যাদি খেয়ে জীবনধারণ করে।

উপজেলা প্রাণিসম্পত কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য সকল ধরনের প্রাণীর দরকার আছে। আবহাওয়া ও পরিবেশের কারণে অনেক প্রাণী হারিয়ে যাচ্ছে। বাবুই পাখি গ্রাম-গঞ্জে থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে গাছ-পালা কেটে ফেলার জন্য। আত্মনির্ভরশীলটার প্রতীক প্রকৃতির সুন্দর সৃষ্টি বাবুই পাখি টিকিয়ে রাখা জরুরি। এজন্য বেশি করে তাল, খেজুর ও নারিকেল গাছ রোপণ করতে হবে।

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস ও মতামত কলামে লিখতে পারেন আপনিও – Peoplesnews24.com@gmail.com ইমেইল করুন  

সর্বশেষ

জনপ্রিয় সংবাদ