• আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় ডিগ্রীধারী পাঁচজন ভূয়া ডাক্তার গ্রেফতার।

| নিউজ রুম এডিটর ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ | জানুয়ারি ৩০, ২০২২ সারাদেশ

সাইফুল ইসলাম ফয়সাল:কুমিল্লার কোতয়ালীথানা এলাকা থেকে ডিগ্রীধারী বড় ডাক্তার পরিচয়ে সকল রোগের ভূল চিকিৎসা করা পাঁচজন ভূয়া ডাক্তারকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ এর সিপিসি-২।

বাংলাদেশ আমার অহংকার এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, জঙ্গি দমন, অবৈধ অস্ত্র, মাদক উদ্ধার, চাঞ্চল্যকর হত্যা এবং বিভিন্ন আলোচিত অপরাধীদের গ্রেফতারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। গোয়েন্দা নজরদারী ও আভিযানিক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় অপরাধীদের দ্রুততম সময়ে গ্রেফতারের মাধ্যমে র‌্যাব ইতোমধ্যেই জনগণের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।

কুমিল্লায় ডিগ্রীধারী পাঁচজন ভূয়া ডাক্তার গ্রেফতার সম্প্রতিকালে পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, কতিপয় অসাধু প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানকারী চিকিৎসক বিভিন্ন বই পুস্ত দেখে ক্ষুদ্র জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে চেম্বার খুলে নিজেদেরকে বড় বড় ডিগ্রীধারী ডাক্তার পরিচয় দিয়ে সকল রোগের ভূল চিকিৎসা দিয়ে আসছে।

ইতোমধ্যে র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী এই সমস্থ ভূয়া ডিগ্রীধারী ডাক্তারের সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

যার ফলশ্রুতিতে রুগীগণ যেমন ভূল চিকিৎসার মাধ্যমে প্রতারিত হচ্ছে ঠিক একইভাবে দীর্ঘস্থায়ী বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। সল্প শিক্ষিত এই সমস্থ রোগীগণ কোনকিছু বুঝে উঠার আগেই একাধিকবার এই সমস্থ ভূয়া ডাক্তারের চিকিৎসা সেবা গ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের জীবনকে মৃত্যু ঝুঁকিতে ফেলে দেয়। যখন উপায় না পেয়ে ভালো কোন হসপিটালে ভালো কোন চিকিৎসকের শরনাপর্ণ হয় তখন শারীরিক অবস্থার এমনই অবনতি হয় যা থেকে মুক্তির জন্য ব্যয় বহুল চিকিৎসা সেবা অপরিহার্য। এই সমস্থ রোগীদের অধিকাংশই অত্যন্ত গরিব হওয়ায় অধিকাংশ রোগীই চিকিৎসা চালিয়ে যেতে পারেনা এবং খুব অল্প সংখ্যক রোগী নিজেদের শেষ সম্বল বিক্রি করে চিকিৎসা চালিয়ে যায়।

এইভাবে যেমন অনেক পরিবার আপনজন হারায় আবার অনেক পরিবার ব্যয়বহুল চিকিৎসা শেষে পথে বসে যায়। পৃথক দুটি অভিযানে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর দুটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৮ জানুয়ারি ২০২২ইং তারিখ কুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানাধীন তেলিকোনায়‘‘অমিত মেডিকেলহল” এবংকালির বাজারস্থ ‘‘হৃদয় ফার্মেসী”তে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ভূয়া ডিগ্রীধারী ডাক্তার পরিচয় প্রদানকারী পাঁচজন প্রতারককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলোঃকুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানার দীগাম্বরী তলা গ্রামের মৃত চন্দ্রমোহন দেবনাথ এর ছেলে ১। অযিতকুমার দেবনাথ(৬৩); একই থানার সুজানগর গ্রামের মমতাজ উদ্দিন আহমদ এর ছেলে ২। জসিমউদ্দিন আহমদ(৪২); চকবাজার গ্রামের মোঃএরশাদ আলীর ছেলে ৩। মোঃআমিনুল হাসান তারেক(২৫);কাপ্তান বাজার গ্রামের মৃত এ.কে মফিজুলহক এর ছেলে ৪। এ.কে.এম মোজাম্মেল হক(৪৩) এবংপূর্ব বাগিচাগাঁও গ্রামের মৃত নিরাংশু দাস এর ছেলে ৫। দেবাশীষ দাস(৪১)। প্রাথমিক অনুসন্ধান ও গ্রেফতারকৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা দীর্ঘদিন যাবৎ বিএমডিসি কর্তৃক অনুমোদিত কিংবা একাডেমিক সার্টিফিকেটধারী কোন রেজিষ্টার্ড ডাক্তার না হয়েও নিজেদেরকে ডিগ্রীধারী বড় ডাক্তার পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা প্রাদান করে আসছে বলে স্বীকার করে।

উক্ত বিষয়ে গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে কুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন।