• আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুই আসনে লড়বেন হিরো আলম, মনোনয়নপত্র নেওয়ার পর যা বললেন

| নিউজ রুম এডিটর ৭:১৯ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ২, ২০২৩ রাজনীতি

বগুড়া-৬ (সদর) ও বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের উপনির্বাচনে দুটি আসনেই মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বহুল আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম।

সোমবার দুপুরে তিনি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন বলে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মাহমুদ হাসান জানিয়েছেন।

মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় হিরো আলম বলেন, তিনি এবার দুটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তার বাড়ি বগুড়া সদরে হওয়ায় তিনি এলাকাবাসীর দাবির মুখে এ আসনে ভোট করবেন।

এছাড়া বগুড়া-৪ আসনে তিনি একবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন বলেই এবারো সেখান থেকে নির্বাচনে অংশ নেবেন।

হিরো আলম বলেন, বগুড়া সদর ও কাহালু-নন্দীগ্রামের ভোটাররা যাতে মনোক্ষুণ্ন না হন সেজন্যই তিনি দুটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আশা করেন, এবার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে।

দুটি আসনে জয়লাভ করলে কোন আসনে থাকবেন- এমন প্রশ্নের উত্তরে হিরো আলম জানান, সব ভোটারের ভালোবাসা নিয়েই ভোট করতে মাঠে নেমেছেন। জয়লাভের পর তিনি আসন রাখা বা ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।

হিরো আলম আরও বলেন, প্রার্থীরা ভোটের আগে অনেক বড় বড় কথা বলে থাকেন; কিন্তু তিনি বড় বড় কথা বা অঙ্গীকার করতে চান না। ভোটে জিতলেই এলাকার কাজ করে দেখিয়ে দেবেন।

হিরো আলমের দাবি- তিনি সবসময় জনগণের জন্য সেবামূলক কাজ করে থাকেন; তাই জনগণ তাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। এছাড়া তিনি নির্বাচনে পরাজিত হলেও মাঠ থেকে সরে যাবেন না। কারণ তার আরও নির্বাচন করার বয়স রয়েছে। আর তিনি তার চেষ্টা অব্যাহত রাখবেন। কারণ চেষ্টা অব্যাহত রাখলে একদিন সুফল আসবেই। হিরো আলম ভোটের দিন কড়া নিরাপত্তা প্রদানে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তাহলে ভোটাররা সুষ্ঠুভাবে ভোট দিয়ে তাকে বিজয়ী করতে পারবেন।

এলাকাবাসী জানান, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা বহুল আলোচিত হিরো আলম এক সময় ডিশ সংযোগের ব্যবসা ও সিডি বিক্রি করতেন। শৈশবে চানাচুরও বিক্রি করেছেন। ২০০৮ সালে তিনি মডেলিং পেশায় নিয়োজিত হন। এরপর নিজের অভিনয় ও মিউজিক ভিডিও গান রেকর্ড করে ডিশে প্রচার করতে থাকেন।

এতে তার জনপ্রিয়তা সৃষ্টি হওয়ায় তিনি বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়নে পরপর দুইবার সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে হিরো আলম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পেজ খুলে অভিনয় ও মিউজিক গানের দৃশ্য ছড়িয়ে দেন। পরে ইউটিউবে এসব আপলোড করে আলোচনায় আসেন।

সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করা হিরো আলম গত ২০১৮ সালে বগুড়া-৪ আসনের নির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। সিংহ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৬৩৮ ভোট পান। নির্বাচনে তিনি জামানত হারান।