• আজ ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

গৃহবধূ হত্যার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

| নিউজ রুম এডিটর ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ২৭, ২০২৩ অপরাধ-দুর্নীতি

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে গৃহবধূ প্রীতি রানী সরকার হত্যার প্রতিবাদে এবং আসামিদের শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করছেন পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী। নিহত প্রীতি রানী ভৈরব পৌর শহরেররামশংকরপুর এলাকায় বিনোদ সরকারের মেয়ে।

(২৬ শে জুলাই) বুধবার সকালে ভৈরব দুর্জয় মোড় সৈয়দ আমেনা ভবনের দ্বিতীয় তলায় (এনপিএস) মানবাধিকার অফিসে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তার নিহতের পরিবারের লোকজন বলেন, গত ২৭ মার্চ তার স্বামীর বাড়ি থেকে ফোন করে জানানো হয়, প্রীতি রানী বসত ঘরের ধনার সাথে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগাইলে শশুড় বাড়ীর টের পেয়ে যায় পরে তারা ওড়নার বাঁধন কাটিয়া ফাঁস থেকে নামিয়ে চিকিৎসার জন্য বাজিতপুর উপজেলার ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে আমরা হাসপাতালে গিয়ে আমাদের মেয়েকে আঘাত চিহ্ন সহ নিহত অবস্থায় দেখতে পাই।পরে পুলিশ এসে আমার মেয়ের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে। রিপোর্ট তৈরি করার সময় বলেছিলাম মেয়ের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কিন্তু তারা আমাদের কোন কথা না শুনে তাদের মতো করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে নিয়ে যায়। আমাদের মেয়ের শিশুসন্তান রয়েছে। সন্তান রেখে কোনোভাবেই তাঁর আত্মহত্যা করার কথা নয়। তাঁদের মেয়েকে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে।বিদেশ যাওয়ার জন্য টাকা এনে দিতে না পারলে কিছুদিন আগে থেকে আমার মেয়েকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিলেন জামাই। আমাদের মেয়ে যে ঘরে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে সেই ঘরে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যার করার কথা না কারন সে ঘরে দাঁড়ালে তার মাথা ধনার সাথে লেগে যায় কিভাবে আত্মহত্যা করবে আমাদের মেয়ে আপনারাই বলেন। আমাদের মেয়ে কে তার জামাই ও পরিবারের লোকজন পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে এবং সেটাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিচ্ছে। আমরা এই নির্মম হত্যা কান্ডের নিহতের পরিবারের লোকজন স্বামী মিঠুন চন্দ্র বিশ্বাস ও তার সহযোগীদের ফাঁসির দাবি জানান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সঠিক বিচারের দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, মেয়ের পিতা বিনোদ সরকার, মেয়ের মাতা বিপুল রানী, মেয়ের দাদা সুনীল সরকার, মেয়ের দাদু ঊষা রানী, সুজন সরকার প্রমূখ।

এই ঘটনায় ২৯/৩/২৩ কুলিযারচর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়,এস আই রাসেল মিয়া মামলা টি তদন্ত করছেন, এখনো ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসেনি।

এই বিষয়ে জানতে মিঠুন কে ফোন দিলে তার নাম্বার টি বন্ধ অবস্থায় পাওয়া য়ায়।