• আজ ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে কথা বলা সেই শাহেরনকে হাসপাতালে ভর্তি করালেন ইউএনও 

| নিউজ রুম এডিটর ৭:৫৭ পূর্বাহ্ণ | জুন ১৩, ২০২৪ লালমনিরহাট, সারাদেশ
আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলা সেই শাহেরন বেওয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জহির ইমাম। একই সঙ্গে নগদ অর্থ ও দেয়া হয়েছে চাল ও তেলসহ শুকনো খাবার।
বুধবার (১২ জুন) বিকেলে উপজেলা কাকিনা মহিষামুড়ি আশ্রয়ণ প্রকল্পে থেকে নিজে গাড়িতে তুলে কালীগঞ্জ স্বাস্থ্যকমপেক্সে ভর্তি করান। এর আগে দুপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর সুবিধাভোগী শাহেরন বেওয়া ও ঝাঁল মুড়ি বিক্রেতাকে নগদ ১০ হাজার টাকা ও চাল, তেলসহ বিভিন্ন উপকরণ দেয়া হয়। ওই সময় সঙ্গে ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহমেদ, সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাকসহ উপজেলার কর্মকর্তারা।
গতকাল মঙ্গলবার (১১ জুন) আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে ৫ম পর্যায়ের ২য় ধাপে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারের মাঝে এসব জমি ও ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ, কক্সবাজারের ঈদগাঁও এবং ভোলার চরফ্যাশনের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলেন তিনি। ওই সময় লালমনিরহাটের দুই সুবিধাভোগীর সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের একজন ঝাঁলমুড়ি বিক্রেতা বাবুল ও ৭০ বছরের বৃদ্ধা শাহেরন বেওয়া।
ওই সময় শাহেরন বেওয়া ও ঝাঁল মুড়ি বিক্রেতা বাবুল কথা বলার সময় কান্না করে নিজের শারীরিক অসুস্থের কথা জানান। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জহির ইমামকে তাদের দুইজনকে চিকিৎসা ও বিনামূল্যে ওষুধ ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।
শাহেরন বেওয়া হাসপাতালে ভর্তি হয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। প্রধানমন্ত্রী অমার কথা শুনে হাসপাতালে ভর্তি করাতে ইউএনওকে নির্দেশ দেয়ার পর তিনি খোঁজ-খবর নিয়েছেন।  ইউএনও অনেক ভালো মানুষ তাই উনি হাজার ব্যবস্থার পরেও আমার খবর নিয়ে নিজেই হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। এছাড়াও নগদ ৫ হাজার করে দুইজনকে ১০ হাজার টাকা নগদ দিয়েছেন। তেল, চালসহ বিভিন্ন উপকরণ দিয়েছেন।
এ বিষয় কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আলী রাজিব মোঃ নাসের জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ পেয়ে ওই আশ্রয়ণ প্রকল্পে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ পরিদর্শন করে সুবিধাভোগী দুইজনকে হাসাপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। এখন তারা চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তাদের বিনামূল্যে ওষুধসহ সব ধরণের সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এছাড়াও তাদের দুজেনর পরিক্ষা-নিরিক্ষা করে চিকিৎসা দেয়া হবে।
কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জহির ইমাম বলেন, গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে কাকিনা মহিষামুড়ি আশ্রয়ণ প্রকল্পে ৮৭৫ জন গৃহহীন-ভূমিহীন প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর-জমি উদ্বোধন করেন। ওই সময় শাহেরন বেওয়া ও ঝাঁলমুড়ি বিক্রেতা বাবুল কথা বলেন। তাদের কথায় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশক্রমেই তাদের চিকিৎসাসহ বিনামূল্যে ওষুধ ও চাল, তেলসহ নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও একজন চিকিসক সব সময় খোঁজ-খবর নিচ্ছেন।