• আজ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১০ বছর পর আবারও কার্যক্রম শুরু করেছে ডেসটিনি

| নিউজ রুম এডিটর ৪:০৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ সারাদেশ

কথার যাদুতে বশ করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে নেয়া হয়েছে হাজার হাজার কোটি টাকা। মিথ্যা আশ্বাসে আস্থা রেখে, জীবনের শেষ সম্বলটুকু খুইয়ে এখন নিঃস্ব লাখ লাখ মানুষ। বলছি এমএলএম কম্পানি ডেসটিনি’র কথা। কার্যক্রম বন্ধের প্রায় ১০ বছর পর আবারও আলোচনায় এই প্রতিষ্ঠান। সমবায় কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এরই মধ্যে অনুমোদনও দিয়েছে সমবায় অধিদফতর। এমএলএম ব্যবসাও করতে চায় ডেসটিনি।

কিন্তু মিথ্যা প্রলোভন দিয়ে সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে যে অর্থ হাতিয়ে নেয়া হয়েছে, সম্পদ তার চেয়েও অনেক কম। নিরীক্ষায় প্রমাণ মেলায় কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় সরকার। প্রতিষ্ঠানের শীর্ষকর্তারা এখনও জেলে, আর টাকার জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছে বিনিয়োগকারী।

দীর্ঘদিন পর আবারও মাঠে নেমেছে বিতর্কিত প্রতিষ্ঠান ডেসটিনি। এরই মধ্যে ‘ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড’ পরিচালনায় কমিটির অনুমোদন দিয়েছে সমবায় অধিদফতর। নতুন কমিটি’র সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন লে. জে. অব. এম হারুন অর রশিদ। শুধু সমবায় কার্যক্রমই নয়, এমএলএম ব্যবসাও চালু করতে চায় এই কমিটি।

ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ লি. সহ-সভাপতি জাকির হোসেন কিসলু বলেন, আমরা মাত্র অনুমোদন পেয়েছি। এখন আমাদের সকল কমিটি বসবে, বিভিন্ন ইস্যু আলোচনা হবে। এছাড়াও আমাদের ব্যাংক হিসেবগুলো পুনরায় চালু করতে হবে, আদালতে আবেদন করতে হবে। সবশেষে আমরা আমাদের অবস্থান সরকারকে জানাবো। তখন যদি সরকার বলে শুরু করা যাবে এরপরই শুরু হবে।

অনুমোদন পাবার পর কাকরাইল মোড়ে আলী’স টাওয়ারের কয়েকটি ফ্লোরে শুরু হয়েছে কার্যক্রম। কিন্তু ব্যবসার ধরণ কী হবে, আবারও কি সাধারণ মানুষের কাছ থেকে আমানত নেয়া হবে? মানুষ কি আবারও ফাঁদে পা দেবে- ঘুরপাক খাচ্ছে এমন হাজারো প্রশ্ন।

২০১২ সালে ডেসটিনি কো-অপারেটিভে ১ হাজার ৪৪৮ কোটি টাকার অনিয়ম খুঁজে পায় সমবায় অধিদফতরের নিরীক্ষা দল। তারপর দশ বছরেও আমানতকারীদের অর্থ বুঝিয়ে দেয়নি কেউ। এদিকে নতুন করে কমিটি অনুমোদনের খবর জানেন না সমবায় প্রতিমন্ত্রী।

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, এ ধরনের কিছু আমার জানা নেই। সমবায় অধিদফতর দিতে পারে, তবে যে ধরনের অভিযোগ তাদের নামে আছে সে হিসেবে মন্ত্রণালয়কে না জানিয়ে এমন করার কথা না।

বিশ্লেষকদের পরামর্শ সংকটের এই সময়ে এমন ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে তদারকি ব্যবস্থা জোরদার করা জরুরি।

পিএন/জেটএস


করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন পিপলস নিউজ‘এ । আজই পাঠিয়ে দিন feature.peoples@gmail.com মেইলে