• আজ ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শুল্ক কমানোর দাবিতে রংপুর বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন

| নিউজ রুম এডিটর ৭:১৯ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২২ সারাদেশ

রাকিব হোসেন: বিড়িতে শুল্ক কমানো ও অগ্রিম ১০ শতাংশ আয়কর প্রত্যাহারসহ পাঁচ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে রংপুর বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায় রংপুর চেম্বার অব কমার্স এর সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সরেজমিনে পরিদর্শন ব্যতিরেখে কারখানার লাইসেন্স না দেওয়া, বিড়ি শ্রমিকদের সুরক্ষা আইন প্রণয়ন করা এবং কাস্টমস্ কর্তৃপক্ষকে নকলবাজদের বিরুদ্ধে আইনানুগ গ্রহণের দাবিও জানান শ্রমিকরা।

রংপুর জেলা (হারাগাছ) বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসনাত লাবলুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি আমিন উদ্দিন (বিএসসি)। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক হারিক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুর, প্রচার সম্পাদক শামীম ইসলাম, কার্যকরী সদস্য আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, “দেশের প্রাচীন শ্রমঘন বিড়ি শিল্পে রংপুর অঞ্চলের অসহায়, হতদরিদ্র, স্বামী পরিত্যক্তা, নদী ভাঙ্গন কবলিত জনগন, শারীরিক বিকলঙ্গসহ লক্ষ লক্ষ সুবিধা বঞ্চিত শ্রমিক কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। স্বাধীনতার পর এদেশের সাধারণ মানুষ ও অসহায় শ্রমিকদের কথা বিবেচনা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিড়ি শিল্পকে শুল্কমুক্ত ঘোষণা করেন। শ্রমবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৯-২০১০ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় বিড়িতে শুল্ক কমিয়ে সিগারেটে শুল্ক বৃদ্ধির নির্দেশনা দেন। অথচ বিদেশী বহুজাতিক কোম্পানীর ষড়যন্ত্রে দেশের প্রাচীন শ্রমঘন এ শিল্পটি ধ্বংস করা হচ্ছে। এদেশীয় কিছু দুর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তা বিদেশী বহুজাতিক কোম্পানীর কাছে সুবিধা পেয়ে বিড়ির উপর মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা চাপিয়ে দিচ্ছে। বিড়ি মালিকরা এই মাত্রাতিরিক্ত করের বোঝা সহ্য করতে না পেরে কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছে। ফলে শ্রমিকরা বেকার হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।”

বক্তারা আরো বলেন, ‘বিড়ি শিল্প দেশীয় শ্রমিকবান্ধব শিল্প। এতে ব্যবহৃত সকল কাঁচামাল দেশেই উৎপাদিত। সমাজের সুবিধা বঞ্চিত বিড়ি শ্রমিকদের অন্নসংস্থানের একমাত্র মাধ্যম বিড়ি শিল্প। অথচ বিদেশী বহুজাতিক কোম্পানী এদেশের মানুষের ফুসফুস পুড়িয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করছে। দেশীয় শিল্প নিয়ে ষড়যন্ত্র বন্ধ করা না হলে আমরা তীব্র আন্দোলন সংগ্রামে যেতে বাধ্য হবো।’

মানববন্ধন শেষে রংপুর চেম্বার অব কমার্স এর মাধ্যমে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর চেয়ারম্যান বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন শ্রমিক নেতারা।