• আজ ২রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অন্টারিও’র নির্বাচন : আমি কেন বাংলাদেশি প্রার্থীদের ভোট দিতে বলি

| নিউজ রুম এডিটর ৭:২৭ অপরাহ্ণ | জুন ১, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আমি কেন বাংলাদেশি কানাডিয়ান প্রার্থীদের ভোট দিতে বলি জানেন! আমি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের ভোট দিতে বলি- কানাডায় বাংলাদেশি কমিউনিটিকে গুরুত্বপূর্ণ এবং মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠার জন্য। কানাডার রাজনীতিকরা, নীতিনির্ধারকরা যেনো বাংলাদেশি কমিউনিটিকে আলাদা চোখে দেখেন- সেটা নিশ্চিত করার জন্য। দু’টি প্রধান রাজনৈতিক দল থেকে যে তিন জন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী মনোনয়ন পেয়েছেন- তাদের যোগ্যতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই, ডলি বেগম এবং কানিজ মৌলী তো যোগ্যতা এবং অভিজ্ঞতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েই প্রার্থী হয়েছেন।

আমাদের চারপাশে তাকান। শ্রীলংকান, তামিল, পাকিস্তানি, ইন্ডিয়ান, ইথিওপিয়ান- প্রত্যেক কমিউনিটিই রাজনীতিতে, নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে নিজেদের অবস্থান বেশ সংহত করেছেন। তাদের তুলনায় আমরা বাংলাদেশি কমিউনিটি কোথায় অবস্থান করছি! আমাদের সবে ধন নীলমণি- ডলি বেগম, একজন মাত্র প্রতিনিধি। স্কারবোরোর বিভিন্ন রাইডিং বিভিন্ন কমিউনিটি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে পরিকল্পিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা অন্তত একটি রাইডিং আমাদের নিয়ন্ত্রণে রাখবো না কেন!

বাংলাদেশি প্রার্থী নির্বাচিত হলে- সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশি কমিউনিটির গুরুত্ব বাড়ে। ডলি বেগম প্রভিন্সিয়াল নির্বাচনে নির্বাচিত হওয়ার পর রাজনীতিকদের কাছে বাংলাদেশি কমিউনিটির গুরুত্ব অনেক বেড়েছে। কোভিডের সময় প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড নানা ভাষায় নাগরিকদের জন্য ভিডিও বার্তা দিয়েছেন। বাংলা ভাষায় ভিডিও বার্তা করা যাচ্ছিলো না বলে ডাগ ফোর্ডের পুরো টিম অস্থির হয়ে পড়েছিল। আসমা আহমেদের করে দেয়া ভিডিও দেখে দেখে প্র্যাকটিস করে ডাগ ফোর্ড করোনায় বাংলা ভাষায় ভিডিও বার্তা দিয়েছিলেন। ডেল ডোকা লিবারেল পার্টির নেতা হওয়ার পর নিজ থেকে যোগাযোগ করে বাংলা মিডিয়ায় সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, আমাদের সঙ্গে লাইভে যোগ দিয়েছেন। অতীতে আমরা লিবারেল পার্টির নেতাদের সমর্থন দিয়েছি নিঃশর্তভাবে, কিন্তু এবারই প্রথম লিবারেল নেতা নিজ থেকে বাংলা মিডিয়ার কাছে কাভারেজ চাইতে এসেছেন। এটি হয়েছে তাদের কাছে বাংলাদেশি কমিউনিটি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যাওয়ায়। এই গুরুত্বটা এমনিতেই তৈরি হয়নি। বাংলাদেশি কমিউনিটি যখন নিজেদের একজন প্রতিনিধি নির্বাচিত করে ফেলেছে- তখনি তাদের মনোভাবে পাল্টে গেছে। এটা বুঝতে হবে।

নিজের অভিজ্ঞতার কথাও শেয়ার করি। গত দুই বছরে প্রিমিয়ার অফিসের, কনজারভেটিভ ককাসের, মন্ত্রীদের অনেক অনুষ্ঠানে এথনিক মিডিয়াকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। আমাকে প্রায় সবকটি অনুষ্ঠানেই অংশ নিতে হয়েছে। ই-মেইল কনফার্মেশন পাঠাতে দেরি হলে প্রিমিয়ার অফিস থেকে ফোন করে নিশ্চিত হতে চেয়েছে- আমরা জয়েন করছি। তারা বলেই ফেলেছে- তারা বাংলাদেশি কমিউনিটিকে রিচ করতে চায়। কেন তারা বাংলাদেশি কমিউনিটিকে রিচ করতে চায়! কারণ বাংলাদেশি কমিউনিটি তাদের নিজেদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করে ফেলেছে, তারা ভবিষ্যতে আরো করবে। অন্টারিও’র রাজনীতিকদের মধ্যে এই ভাবনাটা তৈরি হয়েছে ডলি বেগম বিজয়ী হবার পরই।

এই কারণেই আমি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যোগ্য প্রার্থীদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাই। ডলি বেগমকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানাই। কানিজ মৌলীকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানাই। ফারহিন আলীমের জন্য শুভ কামনা জানাই। আমি মনে করি, বৃহস্পতিবারের নির্বাচনে ডলি বেগম প্রার্থী নন, কানিজ মৌলী প্রার্থী নন- প্রার্থী কানাডার বাংলাদেশি কমিউনিটি। বাংলাদেশি কমিউনিটির গুরুত্ব এবং মর্যাদা বাড়াতে আপনার সিদ্ধান্তই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।