• আজ ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ককটেল ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি

| নিউজ রুম এডিটর ১০:০০ অপরাহ্ণ | মার্চ ৮, ২০২৩ সারাদেশ

নিজস্ব সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ককটেল ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে বাদল আলম(৪৫)নামে এক সাউন্ড ব্যবসায়ীকে লোহার রড ও পাইপ দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে কিশোর গ্যাং নিবির,মাসুদ,সাব্বির,হিমেল ও রাব্বী গং। শবে বরাতের দিন রাতে থানার মদনপুরস্থ হরিপুর এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

আহত বাদলকে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাকে উদ্ধারে তার ভাতিজা
রিয়া(২৫)সহ অন্যান্যরা এগিয়ে এলে হামলকারীরা তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে।

এঘটনায় আহতের স্ত্রী কামরুন নাহার স্বপ্না বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৮/৯জনকে আসামী করে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সারেংসারবাগ এলাকার মোতালেব মিয়ার ছেলে নিবির,মুরাদপুর এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে মাসুদ একই এলাকার সাব্বির,হিমেল ও রাব্বীর
সঙ্গে গত বুধবার গভীর রাতে সারেংশারবাগ এলাকার কতিপয় যুবকের পূর্ব বিরোধ নিয়ে ঝগড়া হয়। এ সময় তার স্বামী সাউন্ড ব্যবসায়ী বাদল উভয় পক্ষের ঝগড়া মিটিয়ে দেয়। মীমাংসার পরও কিছুক্ষণ পর নিবির,মাসুদ,সাব্বির,হিমেল ও
রাব্বী গং ধারালো অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রায় অর্ধ শতাধিক ভাড়াটে গুন্ডা নিয়ে ককটেল ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে। এ সময় বাদলকে একা পেয়ে তার উপর ঝাপিয়ে পড়ে। ওই মুহুর্তে কিছু বুঝে উঠার আগেই হামলাকারীরা হত্যার চেষ্টায় বাদলকে লোহার রড ও পাইপ দিয়ে পিটিয়ে বাম হাত ভেঙ্গে দেয়।

হামলাকারীদের অস্ত্রাঘাতে বাদল মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তাকে উদ্ধারে তার ভাতিজা রিয়াজসহ অন্যান্যরা এগিয়ে এলে ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা তাকেও বেদম মারধর করে। আহতরা ডাক চিৎকার করলে আশ পাশের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে এলে অবস্থা বেগতিক বুঝে হামলাকারীরা দ্রত সটকে পড়ে। পরে উপস্থিত লোকজন আহতদের উদ্ধার করে নবীগঞ্জস্থ বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানোর
ব্যবস্থা করে।