• আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে বিধবা রুমান‘র জীবন ও সম্পত্তি রক্ষায় ন্যায় বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

| নিউজ রুম এডিটর ৭:২২ অপরাহ্ণ | জুন ২৪, ২০২৩ সারাদেশ

রফিকুল ইসলাম ফুলাল প্রতিনিধি দিনাজপুর : দিনাজপুর শহরের বালুবাড়ি মহল্লার অসহায় বিধবা নারীর ১ একর ৬৪ শতক ৬৫ লিং সম্পত্তি জোবরদখলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে এ্যাড.সাইফুল ইসলাম। জমিভোগ করতে চাইলে তাকে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে, অন্যথায়় পরিবারের সদস্যদের হত্যা করে লাশ গুমেরও হুমকি দিচ্ছে আইনজীবী ও তার সন্ত্রাসীরা।

২৪ জুন শনিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত অভিযোগ করেন বালুবাড়ি মহল্লার মৃত আজম খানের বিধবা স্ত্রী খন্দকার রুমানা ফেরদৌসী । এসময় তিনি লিখিত বক্তব্য পাঠ করে বলেন, আমার স্বামী মৃত আজম খান দিনাজপুর উত্তরা ব্যাংক মালদহপট্টী শাখা হতে জমি মর্টগেজ দিয়ে ঋণ নিয়েছিলেন। সেই ঋণের টাকা সময়়মত পরিশোধ করতে না পারায় ব্যাংক আমার স্বামীর বিরুদ্ধে অর্থ ঋণ আদালতে মামলা করেন ,যার অর্থ ঋন আদালতের মামলা নং ৪১/২০১৭ইং। মামলা চলমান অবস্থায় আমার স্বামী আজম খাঁন গত ৮/৫/২০২০ইং তারিখে মৃত্যুবরণ করেছেন। ইতিমধ্যে আদালত মর্ডগেজকৃত ওই সম্পত্তি ক্রোকের পদক্ষেপ নিলে আমি মহামান্য হাইর্কোট ডিভিশন আদালতে পিটিশন মামলা নং ২৯৫/২০২২ইং দায়ের করি । বর্তমানে ওই সম্পত্তির উপরে উচ্চ আদালতের বিচারপতি জাফর আহমেদ এবং কাজী জিনাত হক এর বেঞ্চ গত ৩০/০১/২২ইং তারিখে মর্টগেজকৃত জমির উপর ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি আদেশ প্রদান করেন । পরবর্তীতে বর্ণিত পিটিশনের প্রেক্ষিতে মহামান্য হাইর্কোট ডিভিশনের বিচারপতি মো: রুহুল কুদ্দুস এবং বিচারপতি এসএম মনিরুজ্জামান এর বেঞ্চ গত ১৬/০১/২৩ইং তারিখে পুনরায় মর্টগেজ সম্পত্তিতে ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা আদেশ দিয়েছেন। ২০২০ সালে স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে নাবালক সন্তানসহ আমার অর্বনীয় অসহায় অবস্থার সৃষ্টি হয়় । জমি ও সম্পদ আত্বসাতের জন্য আমার ভাসুর আগা খাঁন আমার অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে গার্র্জিয়়ান সেজে নানান চক্রান্তে লিপ্ত হন। এরই ধারাবাহিকতায়় এ্যাড. মো: সাইফুল ইসলামসহ তার ১০/১২জন সন্ত্রাসীদের সাথে নিয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ গত ২৩ মার্চ/২৩ইং রাতে শেখপুরা বিশ্বরোডস্থ আমার সম্পত্তিতে জোরপূর্বক আদালতের নির্দেশ অমান্য করে স্থাপনা তৈরি করতে শুরু করেছে । খবর পেয়ে আমি ও আমার সন্তানেরা ঘটনাস্থলে যাই এবং স্থাপনা নির্মানে বাধা দেই।

এসময় আমার শত আপত্তি সত্ত্বেও আগা খাঁনের লেরিয়ে দেয়া ভুমিদস্যু এড.সাইফুল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী স্থাপনা তৈরি কাজ বন্ধ করেনি,বরঞ্চ এ্যাড.সাইফুল উল্টো আমার কাছে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে । যদি আমি দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দেই তাহলে আমাকে ও আমার সন্তানদেরকে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলার হুমকি দেয়। এই ঘটনার পর আমি আইনি সহায়তা পেতে ওই রাতেই দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় উপস্থিত হয়ে একটি জিডি করেছি,যার নং ১৮৩৬ তাং ২৩/০৩/২৩। এরপর থেকে তারা ইচ্ছেমত স্থাপনা তৈরীর কাজ করতে থাকে। সর্বশেষ গত ২৩/০৬/২৩ইং দুপুরে আমি ও আমার সন্তানের ওই সম্পত্তিতে বাউন্ডারী ওয়াল নির্মান কাজে বাঁধা দিলে এ্যাড.সাইফুল আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার রড দিয়ে এলোপাতারী আঘাত করে এবং টেনে হেচড়ে সবার সামনে আমেক বিবস্ত্র করে শ্লীতাহানী ঘটিয়েছে। এসময় তারা আমার মেয়ে এবং পুত্রকেও মারধোর করে আহত করেছে। অসহায় বিধবা নারী হিসেবে আমি ন্যায় বিচার চাই।

আমার সম্পদ ও আমার পরিবারের সদস্যদের জীবন রক্ষায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ইকবালুর রহীম এবং স্থানীয় প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার দাবি করছি। এসময় সংবাদ সম্মেলনে পুত্র মো: রামিম রাইয়ান খাঁন ও কন্যা আতিকা তাসনিম আরলিনাসহ উপস্থিত ছিলেন তার বোন খন্দকার নাসিমা আখতার ।