• আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেশকে তামাকমুক্ত করতে সকলকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে মনোরঞ্জন শীল গোপাল, এমপি

| নিউজ রুম এডিটর ৫:৪০ অপরাহ্ণ | জুলাই ১২, ২০২৩ দিনাজপুর, সারাদেশ

দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য, মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা বাস্তবায়নে আমি যে কোন কার্যক্রমে নিজেকে সম্পৃক্ত রাখবো। এক্ষেত্রে দেশকে সম্পূর্ণরূপে তামাকমুক্ত করতে হলে সকলকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। এছাড়া এ ব্যাপারে তিনি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলেও জানিয়েছেন।

বুধবার দুপুরে (১২ জুলাই) রাজধানীর ন্যাম ভবনে অবস্থিত নিজ বাসভবনে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের এক প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা বলেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল।

তিনি বলেন, মাদকমুক্ত জাতি গঠন করতে হলে প্রথমেই দেশে তামাকের ব্যবহার শুন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন সিগারেটের খুচরা শলাকা বিক্রি আইন করে বন্ধ করা, বিক্রয়কেন্দ্রে তামাকজাত পণ্যের প্রদর্শনী নিষিদ্ধ করাসহ আরো নানা উদ্যোগ। পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মকে তামাকের করাল গ্রাস থেকে রক্ষা করতে হলে ই-সিগারেটের আমদানি, বাজারজাতকরণ বন্ধ করা প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি।

মনোরঞ্জন শীল গোপাল জানান, ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০০৫ অধিকতর সংশোধনের লক্ষ্যে প্রস্তাবিত খসড়া আইনটি দ্রুত পাশ করে এর বাস্তবায়ন না করা হলে, আগামী প্রজন্ম আরও বেশি আসক্ত হয়ে পরবে যা দেশ ও জাতির জন্য বয়ে আনবে মারাত্মক বিপদ।

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের উপ-পরিচালক মোখেছুর রহমানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে ছিলেন তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের সমন্বয়কারী মোঃ শরিফুল ইসলাম ও মিডিয়া ম্যানেজার আল তানভীর নেওয়াজ। প্রতিনিধি দল মনোরঞ্জন শীল গোপাল, এমপিকে তামাক নিয়ন্ত্রণে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত করেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রণীত তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের সংশোধিত খসড়া বিষয়ে তাকে ব্রিফ করা হয়। সংশোধিত খসড়া আইনটি পাসে তার ইতিবাচক ভূমিকার জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তিনি আইনটির প্রতি সমর্থন প্রদান করেন এবং এটি পাসে তার সর্বাত্মক সহযোগিতার মনোভাব ব্যক্ত করেন।