• আজ ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় মন্দির স্থাপনের জায়গা নির্ধারণে দিনাজপুর

| নিউজ রুম এডিটর ৬:১৪ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৭, ২০২৩ দিনাজপুর, সারাদেশ

দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মন্দির স্থাপনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের টালবাহানা‘র প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

১৭ জুলাই সোমবার দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের সনাতন ধর্মালম্বী শিক্ষার্থীরা। এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শিক্ষার্থী প্রসেনজিত বিশ্বাস। তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা‘র স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানের অংশ হিসেবে এবং র্স্মাট নাগরিক গড়ার প্রত্যয়ে প্রায় প্রতিটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সনাতনী শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় মুল্যবোধ ও নৈতিক শিক্ষার জন্য কেন্দ্রীয় প্রার্থনালয় স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু অত্যান্ত পরিতাপের বিষয় হাবিপ্রবি রিজেন্ট বোর্ডের ২০১৩ সালের ৩০তম সভায় গৃহিত সিদ্ধান্ত বিবিধ-১ (কেন্দ্রীয় মন্দির) সিদ্ধান্ত পাশ হলেও তা আজো বাস্তবায়ন করা হয়নি। এ বিষয়ে বিভন্ন সময়ে সনাতনি শিক্ষার্থী,শিক্ষক,কর্মকর্তা কর্তৃক বিষিয়টি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি গোচরের চেষ্টা করলেও তা সফলতার মুখ দেখেনি।

এরপ্রেক্ষিতে সনাতনি শিক্ষার্থীরা গত ০৪/১২/২২ইং তারিখে লিখিত আকারে আবারো বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নজরে নিয়ে আসি এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তখন আমাদের আশ্বস্ত করেছিল ২০২২ এর শীতকালিন ছুটির পর জানুয়ারী মাসের প্রথম সপ্তাহে মন্দির বাস্তবায়নে ফলপ্রসু সিদ্ধান্ত জানাবেন,কিন্তু সেটাও বাস্তবায়ন হয়নি। এরই ধারাবাহিকতায় গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টিকে আমরা পুনরায় সম্মিলিত দাবী উপস্থাপন করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতিনিধিবৃন্দ দ্রুতগতিতে একটি কমিটি গঠন করে এবং ৭ কার্য্যদিবসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মন্দির নির্মানের জায়গা নির্ধারণের পুনরায় অঙ্গীকার করেন।

কিন্তু দু:খের বিষয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মন্দির বিষয়ে আবারো ব্যর্থ হয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসেনর বার বার টালবাহানার পর সনাতন ধর্মালম্বী শিক্ষার্থীরা ধৈর্য্য হারিয়ে গত ২২/০১/২৩ ইং তারিখে ক্যাম্পাসে প্রশাসনিক ভবনের সামনে শান্তির্পূন অবস্থান কর্মসুচি শুরু করে। একই সাথে দাবী বাস্তবায়নের জন্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে দফায় দফায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বৈঠক করেন। সনাতন শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে প্রশাসনের প্রশাসনিক জটিলতা,নিয়মকানুন সবমেনে সুবিধাজনক সময়ে এই দাবী বাস্তবায়নের সুযোগ দেয়া হলেও তারা কোনো পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। গত ৬ মার্চ/২৩ইং এব্যাপারে রির্পোট ঘোষনার কথা থাকলেও তা প্রকাশ করা হয়নি এবং ৩০ জুন ২০২৩ইং তারিখের মধ্যে মন্দির নির্মানের জন্য জায়গা নির্ধারণ এবং ইউজিসি‘র অর্থায়ণে একটি মন্দির নির্মানের ঘোষনা দেয়ার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। এসময় তারা বলেন,আমরা দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে দাবী বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি পাঠিয়েছি। সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পসে মন্দির নির্মানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র সুদৃষ্টি প্রত্যাশা করেন সনাতন শিক্ষার্থীরা । এসময় উপস্থিত ছিলেন তাপসী রানী রায়,কুমারী বৃষ্টি রানী,সোনা কান্ত রায়,আবির চন্দ্র রায়,পরিতোষ রায় প্রমুখ।