• আজ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা, সিরাজদিখানে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা, ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাকা গুলি বর্ষন

| নিউজ রুম এডিটর ৬:৪১ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২২ সারাদেশ

মোহাম্মদ রোমান হাওলাদার: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে জামিনে বেরিয়ে এসে বাদী মোসাঃ চম্পা বেগমকে হুমকি প্রদানের অভিযোগ পাওয়া গেছে মামলার এজাহার ভূক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে। বাদী মোসাঃ চম্পা বেগম উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের মির্জাকান্দা গ্রামের মৃত আক্তার হোসেনের স্ত্রী ও কেয়াইন ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের পরাজিত মহিলা ইউপি সদস্য পদ প্রার্থী শাহিনুর বেগমের চাচী শ্বাশুরী এবং অভিযুক্ত হুমকি দাতাগণ একই ওয়ার্ডের বিজয়ী প্রার্থী জিয়াসমিন বেগমের কর্মী ও সমর্থক। মামলার বাদীর অভিযোগ, মামলা দায়েরের পর থেকে তিনিসহ পরাজিত প্রার্থী শাহিনুর বেগমের পরিবারের লোকজনসহ সমর্থক ও কর্মীদের বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন পূর্বক মামলা তুলে নিতে নিয়মিত হুমকি প্রদান করে আসছিলো বিজয়ী প্রার্থী জিয়াসমিন বেগমসহ তার কর্মী ও সমর্থকরা।

এ ব্যপারে মামলার বাদী মোসাঃ চম্পা বেগমসহ শাহিনুর বেগমের বেশ কয়েকজন কর্মী ও সমর্থক নিরাপত্তার শঙ্কায় সিরাজদিখান থানায় সাধারণ ডাইরী ও লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে হুমকির বিষয়টি মামলা আসামী পক্ষের লোকজন অস্বীকার করেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছররের ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে সিরাজদিখান উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়ন তথা কেয়াইন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেয়াইন ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনে শাহিনুর বেগম ও জিয়াসমিন বেগম নামে দুই নারী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। উক্ত নির্বাচনে প্রতিদন্দ্বী প্রার্থী শাহিনুর বেগম পরাজিত হন।

নির্বাচনে হাড় জিতকে কেন্দ্র করে ২৭ ডিসেম্বর জিয়াসমিন বেগমের লোকজন শাহিনুর বেগমের বাড়ী সংলগ্ন ব্রীজে এসে স্বামী উজ্জলসহ বাড়ীর লোকজন ও সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে গালিগালাজের সূত্র ধরে তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটির এক পর্যায়ে জিয়াসমিন বেগমের লোকজন তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় ৬-৭ টি ককটেল বিস্ফোরণ ও ৫-৬ টি ফাঁকা গুলি ছোড়ে তারা। এতে শেখ মোখলেস নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় শাহিনুর বেগমের চাচী শ্বাশুরী মোসাঃ চম্পা বেগম বাদী হয়ে সিরাজদিখান থানায় ১০ জনকে এজাহার নামীয় বিবাদীসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৭-৮ জনকে বিবাদী করে ১৪৩/৪৪৭/৫০৬/১১৪-পেনাল কোড ১৮৬০ তৎসহ ৩(এ)/৩-ক/৬ ১৯০৮ সালের বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের ধারায় সিরাজদিখান থানায় মামলা দায়ের করেন। যার নং-১৯। মামলা দা।য়েরের কয়েকদিন অন্তর অন্তর মামলার আসামীদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। সম্প্রতি মামলার আসামীরা উচ্চ আদালতের মাধ্যমে জামিনে বেরিয়ে এসে মামলার বাদী ও ইউপি সদস্য পদ প্রার্থী শাহিনুর বেগমের পরিবারের লোকজন,সমর্থক ও কর্মীদের হুমকি প্রদান করে আসছে মর্মে মামলার বাদী সাংবাদিক দারস্থ হয়ে মৌখিক অভিযোগের মাধ্যমে এর প্রতিকার চেয়েছেন।

মামলার বাদী মোসাঃ চম্পা বেগম বলেন, আমি বাদী হয়ে মামলা করার পর থেকে জিয়াসমিন বেগমের লোকজন প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ভাবে আমাদের মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে।আমরা অনেকটা নিরাপত্তাহীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছি। আমরা তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত মামলার প্রধান আসামী আব্দুল হক বলেন, আমাদের কেউই তাদের হুকমি দেইনি। এসব মিথ্যা ও বানোয়াট। তারা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। মামলার বিবরণে ককটেল বিস্ফোরণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো বাদী পক্ষের লোকজনের নিজেদের ছোড়া ককটেলে নিজেরাই আহত হয়েছে। আমরাও এ বিষয়ে মামলা করেছি।