• আজ ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলে অবৈধ মেলামেশার ভিডিও’র ভয় দেখিয়ে তরুণীকে নিয়মিত ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার

| নিউজ রুম এডিটর ৬:৫২ অপরাহ্ণ | জুন ১১, ২০২২ টাঙ্গাইল, সারাদেশ

খায়রুল খন্দকার টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে রুবেল (২৫) নামে এক যুবকের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্রে প্রেমের সম্পর্কে পর ধর্ষণের শিকার হয়েছেন কলেজ পড়ুয়া এক তরুণী। আর এ ঘটনায় ওই কলেজছাত্রীর মা বাদী হয়ে ভূঞাপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে রুবেল ও তার সহযোগী ওসমান গনিকে চট্টগ্রামের একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

প্রধান অভিযুক্ত রুবেল উপজেলার অলোয়া ইউনিয়নের খড়ক গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে ও তার সহযোগী ওসমান গনি একই গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে। রুবেল এক সন্তানের জনক। আর ধর্ষণের শিকার ওই মেয়েটি ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজের ছাত্রী।

জানা যায়, রুবেলের সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয় ওই কলেজছাত্রীর। নিয়মিত চলতে থাকে তাদের ভাবের আদান-প্রদান। মাঝে-মধ্যেই দেখা-সাক্ষাৎ হতো তাদের৷ এভাবেই তাদের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই থেকে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক মেলামেশায় জড়িয়ে পড়ে দু’জন।

অনৈতিক মেলামেশার সময় কৌশলে ভিডিও ধারণ করে প্রেমিক রুবেল। আর সেই ভিডিও ফেসুবকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিলে রুবেলের কথা মতো কাউকে না জানিয়ে চট্টগ্রাম চলে যায় মেয়েটি। পরে সেখানে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে বসবাস করতে থাকে প্রেমিক রুবেল ও ওই কলেজছাত্রী।

এদিকে, মেয়েটি যে তার প্রেমিকার সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছে বিষয়টি জানতেন না পরিবার। মেয়েকে বাড়িতে না আসায় আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করে। কোথাও না পেয়ে গত ৩০ মে নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে ওই ছাত্রীর মা গত ৫ জুন ভূঞাপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

জিডির পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করেন ভূঞাপুর থানার এসআই ফাহিম ফয়সাল। নিখোঁজ হওয়া মেয়েটির প্রেমিকের মোবাইল নাম্বারের সূত্র ধরে অভিযান চালায় পুলিশের একটি টিম। পরে বুধবার (৮ জুন) চট্টগ্রামের একটি বাসা থেকে অভিযুক্ত রুবেল ও তার সহযোগী ওসমানকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেইসঙ্গে কলেজছাত্রীকেও উদ্ধার করে পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) রাতে রুবেলের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী কলেজছাত্রীর মা।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত যুবকটি কলেজছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণ এবং ভিডিও ধারণ করে। সেই ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে তাকে নিয়ে চট্টগ্রামে চলে যায়। সেখানেও ধর্ষণের শিকার হয় কলেজছাত্রী। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত বখাটে রুবেল ও তার সহযোগী ওসমানকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে।

তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তারকৃত প্রধান অভিযুক্ত রুবেল ও তার সহযোগীকে শুক্রবার (১০ জুন) সকালে টাঙ্গাইল জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তার ফোনে মেয়েটির একাধিক ছবি পাওয়ায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শনিবার (১১ জুন) আদালতের কাছে রিমান্ড চাওয়া হবে। এ ছাড়া মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।