• আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নওগাঁর রানীনগরে তিন ফসলী জমিতে জোরপূর্বক রাস্তা তৈরীর উদ্যোগঃ বাধা দিলে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান

| নিউজ রুম এডিটর ৩:২৮ অপরাহ্ণ | মে ২৮, ২০২৩ সারাদেশ

কামাল উদ্দিন টগর,নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রানীনগর  উপজেলায় ব্যাক্তি মালিকানাধীন ৩ ফসলী জমির উপর দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা তৈরী করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাটি উপজেলার বড়গাছা ইউনিয়নের চামটা গ্রামের। ঐ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মতিনের প্রত্যক্ষ নির্দেশে ৩, পরিবারের মাত্র ৬ জন মানুষের সুবিধা দিতে জোরপূর্বক এই রাস্তা নির্মানের উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে।
 
ভুক্তভোগী ঐ জমির মালিক চামটা গ্রামের পূর্বপাড়ার বিথীন্দ্র নাথ সরকার বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় নওগাঁ জেলা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে উল্লেখ করেছেন বিথীন্দ্রনাথ সরকার ক্রয়সূত্রে মালিকানা পেয়ে ১৬৩৫ নম্বর দাগের ঐ সম্পত্তি দিন থেকে ভোগ দখল করে আসছেন।কিন্তু হঠাৎ করে গত ১২ মে'২০২৩ শুক্রবার ঐ গ্রামের
বিকাশ চন্দ্র, সুবাস সরকার, সন্তোষ কুমার সরকার, উত্তম সরকার, উৎপল সরকার ও প্রদীপ বিশ্বাসসহ আরও কতিপয় ব্যক্তিদের নিয়ে বিথীন্দ্র নাথ সরকারের উক্ত জমির মাঝখান দিয়ে রাস্তা তৈরির জন্য মাটি কাটতে শুরু করে।

এতে বাধা দিতে গেলে তারা মারমুখী হয়ে উঠে।  তারা বড়গাছা ইউনিয়নের
চেয়ারম্যানের আব্দুল মতিনের নির্দেশে  কাবিখা নামের একটি সরকারী প্রকল্প হাতে নিয়ে এই রাস্তা নির্মান করা হচ্ছে। এ সময় ঐ ইউনিয়নের মহিলা সদস্য মোছাঃ মেরিনা খাতুন ও চেয়ারম্যানের সহযোগী মোঃ খায়রুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। 
সংবাদ সম্মেলনে বিথীন্দ্র নাথ সরকার উল্লেখ করেন ঐ সম্পত্তির পূর্ব সাইড দিয়ে ঐ তিন পরিবারে যাওয়ার জন্য আগে থেকেই একটা রাস্তা আছে। শুধুমাত্র একটা ভূয়া প্রকল্পের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করার লক্ষেই এই রাস্তা নির্মানের উদ্যোগ নেয়া হযেছে বলে প্রতিয়মান হয়েছে। 

জমির মাঝখান দিয়ে ৬ফুট প্রস্থ ও ৩০ ফুট পর্যন্ত রাস্তা নির্মানের উদ্যোগ নেয়া হযেছে সেটি ঐ জমির মালিকের একমাত্র জমি। এখানকার ফসল দিয়েই স্যসার চলে। ফলে রাস্তা নির্মিত হলে তারা সর্বশান্ত হবেন। কাজেই সম্পত্তি রক্ষায় বিথীন্দ্র নাথ সরকার রানীনগর থানা, রানীনগরের ইউএনও, এসি ল্যান্ড, এমন কি জেলা প্রশাসকের নিকট একমাত্র তিন ফসলী সম্পত্তি রক্ষার দাবি জানিয়ে আবেদন
জানিয়েছেন।