• আজ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাবেক আইজিপি বেনজীরের বাকি সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

| নিউজ রুম এডিটর ৬:৩১ অপরাহ্ণ | মে ২৬, ২০২৪ আইন ও আদালত, লিড নিউজ

পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ ও তার স্ত্রী-সন্তানের নামে থাকা আরও ১১৩টি দলিলের সম্পদ এবং ঢাকার গুলশানের চারটি ফ্ল্যাট জব্দের (ক্রোক) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে বিভিন্ন কোম্পানিতে তাদের নামে থাকা শেয়ার অবরুদ্ধ করারও আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৬ মে) ঢাকা মহানগর আদালতের সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন এসব আদেশ দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পাবলিক প্রসিকিউটর মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের বলেন, গত বৃহস্পতিবার সাবেক আইজিপি বেনজীরের ৮৩টি দলিলের সম্পদ ক্রোকের আদেশ দেন আদালত। পরে তার আরও সম্পদের খোঁজ পাওয়া যায়। সেই সব সম্পদ জব্দের (ক্রোক) আদেশ চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়। পরে শুনানি শেষে আদালত তার সম্পদ জব্দের আদেশ দেন।

মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর আরও বলেন, গত বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বেনজীর আহমেদ ও তার স্ত্রী-সন্তানদের নামে থাকা ৩৪৫ বিঘা (১১৪ একর) জমি জব্দ এবং বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকে তাদের নামে থাকা ৩৩টি ব্যাংক হিসাব (অ্যাকাউন্ট) অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করার আদেশ দেন। সম্পদ জব্দ এবং ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধের বিষয়ে আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বেনজীর পরিবারের ৩৪৫ বিঘা জমি, সবচেয়ে বেশি স্ত্রীর নামে এ কথা জানিয়ে পিপি মাহমুদ হোসেন বলেন, আদালতের আদেশ অনুযায়ী বেনজীর এবং তার স্ত্রী-সন্তানের নামে থাকা ব্যাংক হিসাবগুলো থেকে কোনো অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন না তারা। কোনো সম্পদও হস্তান্তর করা সম্ভব হবে না তাদের। এগুলো আদালতের নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

এর আগে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে আদালত বেনজীর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের সম্পদ জব্দের যে আদেশ গত বৃহস্পতিবার দিয়েছেন, সেটি বাস্তবায়ন শুরু করেছে দুদক। সম্পদ জব্দ ও ব্যাংক হিসাবগুলো অবরুদ্ধের আদেশের অনুলিপি দুদকের হাতে এসেছে। পর্যায়ক্রমে আদালতের আদেশ সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থার কার্যালয় ও ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য: বেনজীর আহমেদ ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল থেকে ২০২২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইজিপি ছিলেন। এর আগে তিনি ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার ও র‍্যাবের মহাপরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে র‍্যাব এবং র‍্যাবের সাবেক ও বর্তমান যে সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, তাদের মধ্যে বেনজীর আহমেদের নাম আছে। তখন তিনি আইজিপির দায়িত্বে ছিলেন।

সম্প্রতি দেশের একটি জাতীয় দৈনিকে দাবি করা হয়, পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ও র‌্যাবের সাবেক মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদের বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের খোঁজ মিলেছে। এরপর থেকেই বেশ আলোচনায় পুলিশের সাবেক এ আইজিপি। জাতীয় ওই দৈনিকে ‘বেনজীরের ঘরে আলাদীনের চেরাগ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়, যেখানে তার নানা অর্থ-সম্পদের বিবরণ তুলে ধরা হয়।